‘সারাজীবন তার সঙ্গে গাইতে চাই’

শুধু দর্শকদেরই নয়, একজন শিল্পীর নানা গুণ তার সহশিল্পীকেও আন্দোলিত করে। কর্মজীবনে সহশিল্পীর কিছু দোষ থাকলেও, দেশীয় শোবিজের তারকারা তার পছন্দের মানুষটির গুণগুলোকেই শেয়ার করেছেন আমাদের ‘যা কিছু প্রিয়’ বিভাগে। আজকের আয়োজনে কণ্ঠশিল্পী এবং সংগীত পরিচালক হাবিব ওয়াহিদকে নিয়ে বলেছেন কণ্ঠশিল্পী ন্যান্সি।

পরিশ্রম, ধৈর্য আর একাগ্রতার কারণে হাবিব ওয়াহিদ আজ দেশের অন্যতম এবং জনপ্রিয় এবং শিল্পী, সুরকার পরিচালক। তাছাড়াও তার সাথে কাজ করতে গিয়ে আমি দেখেছি কার গলায় কোন গানটা ভালো মানাবে তিনি তা খুবই ভালো বুঝতে পারেন। যে গান আমার কণ্ঠে মানাবে তিনি তা খুবই ভালো বুঝতে পারেন। যে গান আমার চাইতে অন্যরা গাইলে পারফেক্ট হয়, সেই গান তিনি আমাকে দিয়ে গাওয়াননি। যেমন কনার গাওয়া ‘প্রজাপতি’ এবং সাবিনা ইয়াসমিনের গাওয়া ‘বাদলা দিনে মনে পড়ে ছেলেবেলার গানগুলো তার প্রমাণ। আবার যে গান অন্যদের চাইতে আমি ভালো গাইবো সে গান তিনি আমাকে দিয়েই গাওয়াচ্ছেন। এই বিষয়টা আমার কাছে দারুণ ভালো লাগে। আর আমার মনে হয় এসব কারণেই তিনি দেশের এত এত সুর ও সংগীত পরিচালকের চাইতে আলাদা এবং জনপ্রিয়।

তাছাড়া শিল্পীদের তিনি যেভাবে সম্মান করেন, তা যেকোনো শিল্পীর কাছেই অকল্পনীয়। মূলত আমি তাকে বড় ভাইয়ের মতোই জানি। তিনিও আমাকে ছোটবোনের মতোই ভাবেন। কিন্তু শিল্পী ন্যান্সিকে তিনি মর্যাদা দেন, তা আমার কাছে অনেক বড় প্রাপ্তি। আমার মনে হয় অন্য যেসকল শিল্পী তার সাথে কাজ করেছেন সবাই বিষয়টি অনুভব করেছেন। আর গানের বাইরে ব্যক্তি মানুষ হাবিব আরও অসাধারণ। হাবিব ভাইয়ের মুখে আমি কারও সম্পর্কে সমালোচনা শুনিনি। আমাদের সংগীতাঙ্গনে তার অনেক নাম ডাক কিন্তু এর জন্যে তার কোনো অহমিকা নেই। তিনি দারুণ সহযোগী এবং বন্ধুত্বপূর্ণ মানুষ। সহজেই মানুষের সাথে মিশে যেতে পারেন। গান সম্পর্কে তার অনেক জানাশোনা এটা প্রমাণিত। তারপরও একটা গান নিয়ে তিনি শিল্পীদের সাথে মতবিনিময় করেন। শিল্পীদের মতামত মূল্যায়ন করেন। সংগীত জীবনে আমার স্রষ্টা বলে নয়, একজন শিল্পী হিসেবে তার সাথে কাজের অভিজ্ঞতা থেকে বলছি_অসাধারণ কিছু মানবিক গুণের সমন্বয় এবং গানের প্রতি আত্মার টানের জোরেই আজ হাবিব ভাই দেশের অন্যতম একজন শিল্পী এবং সুর ও সংগীত পরিচালক। আমি গর্বিত যে, তার হাত ধরে আমার গানের জীবনে পথচলা শুরু। সারাজীবন আমি তার সাথে গান করতে চাই।

[ad#co-1]