টঙ্গীবাড়িতে আ’লীগ-যুবলীগ ছাত্রলীগের সংঘর্ষ

টঙ্গীবাড়িতে গতকাল গরুর হাটের ইজারা নিয়ে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ সমর্থিত দু’গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি, হট্টগোল, সিডিউল ও পে-অর্ডার ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় শহর যুবলীগের ২ নেতাকর্মী লাঞ্ছিত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে টঙ্গীবাড়ি উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বেতকা গরুর হাটের টেন্ডারের সিডিউল জমা দেওয়া নিয়ে এ সংঘর্ষ হয়। জানা গেছে, বেতকা ইউনিয়ন যুবলীগের ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ কামাল ঢালী বেতকা গরুর হাটের সিডিউল জমা দিতে টঙ্গীবাড়ি উপজেলা পরিষদে গেলে তাতে বেতকা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বাচ্চু সিকদারের ক্যাডার বাহিনী তাতে বাধা দেয়। ওই আওয়ামী লীগ নেতার পক্ষে টঙ্গীবাড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জহিরুল হক জীবনের নেতৃত্বে একদল ক্যাডার যুবলীগ নেতা কামাল ঢালীকে মারধর করে। তাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে লাঞ্ছিত হন যুবলীগ নেতা রিপন মোল্লা ও কর্মী হিরন মিয়া। এ সময় উভয় গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি হলে পরিস্থিতি অশান্ত হয়ে ওঠে। দেখা দেয় চরম হট্টগোল। যুবলীগ নেতা কামাল ঢালীর ২ লাখ টাকার একটি পে-অর্ডার ও বেতকা গরুর হাটের সিডিউল ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার কাজী ওয়াহিদ উভয়ের মধ্যে সমঝোতার প্রস্তাব দিয়েছেন। অন্যদিকে, হাতাহাতি-হট্টগোল, সিডিউল-পেঅর্ডার ছিনতাইয়ের পরও আওয়ামী লীগ নেতা বাচ্চু সিকদার সমর্থিতদের বেতকা গরুর হাটের ইজারা দেওয়া হয়েছে।

[ad#co-1]