ফেরি সার্ভিস সচল রাখতে সার্ভে শুরু

মাওয়ায় যানজটে বিড়ম্বনা
শনিবার তীব্র যানজটে দক্ষিণাঞ্চলের প্রবেশদ্বার মাওয়ায় জনদুভোর্গ ছিল অবর্ণনীয়। শনিবার এখানে ২টি রো রো ফেরিসহ ১৩টি ফেরি চলাচল করে। তারপরও যানজট লেগেই ছিল। এদিকে এই নৌ রুটে ফেরি সার্ভিস সচল রাখতে শনিবার থেকে সার্ভে শুরু হয়েছে। বিআইডব্লিউটিসি’র এজিএম আশিকুজ্জামান জানান, ছুটির দিন এমনেতেই যানবাহনের প্রচন্ড চাপ এর উপর নৌ চ্যানেলের নাজুক অবস্থার কারণে যানজট মারাত্মক আকার ধারণ করে। মাওয়ায় শতাধিক যান পারাপারে অপেক্ষায় রয়েছে। ওপারে কাওড়াকান্দিতেও একই অবস্থা।

চ্যনেল পরিস্থিতি বর্ণণা করে তিনি বলেন, পানি থাকা প্রয়োজন অন্তত ১২ ফুট। কিন্তু এই চ্যানেলের কয়েকটি স্থানে ৯ ফুট, ৮ ফুট ও সাড়ে ৭ ফুট পানিও আছে মাত্র। তাই ভাটায় বার বার ডুবু চরে ফেরি আটকে যায়। এ দিকে খুলনাগামী যাত্রী আশরাফ হোসেন জানান, মাওয়ায় যানজট এখন নিত্য দিনের ঘটনা। বিড়ম্বনা যেন স্থায়ী বাসা বেধেছে। লৌহজং থানার ওসি হেলাল উদ্দিন জানান, অবস্থা এতটা খারাপ যে পুলিশের সারাক্ষণ মাওয়া নিয়েই ব্যস্ত থাকতে হয়। তারপরও জনদুর্ভোগ কমানো যাচ্ছে না নাব্যতার কারণে। নাব্য সঙ্কটের কারণে মাওয়া-কাওড়াকান্দির এখন সোয়া ঘন্টার স্থলে এখন পৌনে ৩ ঘন্টা সময় ব্যয় হচ্ছে। তাই যানজট বেড়ে যাচ্ছে।

[ad#co-1]