রানিং চ্যানেলে ড্রেজিং শুরু ॥ ১ মাস পর চালু হতে পারে ক্রস চ্যানেল

যানজট নিরসনে আরও সময় লাগবে মাওয়ায় ৩ কিমি দীর্ঘ যানজট
নাব্যতা ও ফেরি সংকটের কারণে রবিবারও মাওয়ায় যানজট অব্যাহত ছিল। যানজটের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়ে মাওয়া চৌরাস্তা থেকে তিন কি.মি. দূরে শ্রীনগর উপজেলার দোগাছি বাজার পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। তিন শতাধিক বিভিন্ন প্রকার যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় এখন মাওয়া ঘাটে দাড়িয়ে আছে। যানজটে আটকা পড়ে যাত্রী সাধারণের ভোগান্তি চরম আকার ধারণ করেছে। নাব্যতা সংকটের সাথে রানিং চ্যানেলটি সংকোচিত হওয়ায় গতকাল থেকে এখানে ড্রেজিং করা শুরু হয়েছে।

মাওয়া বিআইডব্লিইটিসি অফিসের এজিএম আশিকুজ্জামান জানান, দুটি রো রো ফেরিসহ মোট ৪টি ফেরি ডর্ক ইয়ার্ডে থাকায় মাওয়া ফেরি বহরে কিছুটা ফেরি স্বল্পতা দেখা দিয়েছে । সেই সাথে নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরিগুলোকে দীর্ঘ ৩০ কি.মি. পথ ঘুরে চলায় ফেরির ট্রীপ সংখ্যা কমে গেছে । ফলে ঘাটে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। তিনি বলেন স্পল্প সংখ্যক ফেরি দিয়ে দীর্ঘ পথ পারি দিয়ে সহজেই আবার ফিরে আসতে না পারায় ঘাটে গাড়ীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে যানজটে পরিণত হচ্ছে। তবে আগামী কাল ডর্কে থাকা ফেরি কাকলী ও সপ্তাহ শেষের দিকে বৃহস্পতিবার নাগাদ রো রো ফেরি ভাষা শহীদ বরকত ও শাহ মখদুর বহরে ফিরে আসার সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি জানান। আর এ ফেরিগুলো বহরে নিয়মিত হলে যানজট নিরসন হয়ে ঘাটের অবস্থার উন্নতি হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

রবিবার যানজটের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়ে মাওয়া ঘাট হতে চৌরাস্তা হয়ে ৩ কি. মি. দূরে শ্রীনগর উপজেলার দোগাছি বাজার পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। এসময় ২শ’ পন্যবাহি ট্রাকসহ ঘাটে আটকা পড়ে তিন শতাধিক বিভিন্ন প্রকার যানবাহন। যানজটে ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থেকে দূর পাল্লার যাত্রীদের দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করে। বিশেষ করে মহিলা ও শিশুদের প্রকৃতির ডাকে সারা দিতে নানান ভোগান্তির শিকার হতে হয়।

এদিকে বর্তমান রানিং চ্যানেলর নওডুবা ও হাজরা চ্যানেলের সংযোগ স্থলের নিকট পলি পড়ে সংকোচিত হয়ে পড়ায় রবিবার হতে বিআইডব্লিউটিএ’র দুটি ড্রেজার দিয়ে চ্যানেলটি প্রশস্ত করার জন্য মাটি আপসারন শুরু হয়েছে।
বিআইডব্লিউটিএর নির্বাহী প্রকৌশলী (ড্রেজিং) মাশুকুল আলম জানান, রানিং চ্যানেলের ওই স্থানটি সংকোচিত হয়ে পড়ার দুটি ফেরি পাশাপাশি চলাচলা প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হওয়ায় রবিবার থেকে এখানে দুটি ড্রেজার দিয়ে মাটি আপসারণ করে চ্যানেলটি প্রশস্ত করণের কাজ চলছে।

তাছাড়া স্বল্প সময়ের ক্রস চ্যানেল হাজরায় ২/১ দিনের মধ্যে আরো দুটি ড্রেজার দিয়ে মাটি আপসারণ করে চ্যানেলটি চালুর পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে। তবে আগামী এক মাসের আগে চ্যানেলটি চালু করা সম্ভব নয় বলে তিনি জানান । যে পরিমা পলি পড়েছে তাতে এগুলো আপসারণ করে চ্যানেলটি চালু করতে এক মাসের আগে সম্ভব নয়। এ এক মাস বর্তমান রানিং চ্যানেলটি চালু রাখতে চ্যানেলটিতে সার্বক্ষনিক ড্রেজিং ব্যবস্থার সুবিধা রাকা হবে। কোথাও সমস্যা হলে ড্রেজার দুটি মাটি কেটে তা সার্বক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহন করবে। অপরদিকে এক মাসের মধ্যে স্বল্প দূরত্বের চ্যানেলটি চালু করা সম্ভব হলে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে আর যাত্রীদেও ভোগান্তির শিকার হতে হবে না বলে তিনি মনে করেন।

মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি। ০১৯১১১৪২৬৭০
০৩.১০.১০

[ad#co-1]