হুমায়ুন আজাদ কবিতা পুরস্কার পেলেন কুমার চক্রবর্তী

হুমায়ুন আজাদ কবিতা পুরস্কার পেয়েছেন কবি কুমার চক্রবর্তী। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানে প্রথমবারের মতো এ পুরস্কার দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে কুমার চক্রবর্তীর হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি জাতীয় অধ্যাপক কবীর চৌধুরী। পুরস্কার হিসেবে কবিকে নগদ ২০ হাজার টাকা, একটি ক্রেস্ট ও হুমায়ুন আজাদের এক সেট কবিতার বই দেওয়া হয়।

কুমার চক্রবর্তী তার তিনটি কবিতার বই ‘সমুদ্র বিষণœতা ও অলীক বাতিঘর’, ‘আয়না ও প্রতিবিম্ব’ এবং ‘পাখিদের নির্মিত সাঁকো’ এর জন্য এ পুরস্কার পেয়েছেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কবীর চৌধুরী বলেন, “হুমায়ুন বহুমূখী প্রতিভার অধিকারী ছিলেন। তার গ্রন্থের দিকে তাকালে তা অনুভব করা যায়।”

এ সময় তিনি হুমায়ুন আজাদের ওপর হামলার নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানান।

অনুষ্ঠানের সভাপতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, “অন্যায়, অবিচারের বিরুদ্ধে সাহসীরা কথা বলে। এমনই একজন হুমায়ুন আজাদ। তিনি সত্য কথা সাহসের সঙ্গে লিখেছেন।”

পুরস্কার প্রদান প্রসঙ্গে হুমায়ুন আজাদের মেয়ে মৌলি আজাদ বলেন, “বাবা সাহিত্যের প্রায় সব শাখায় লিখেছেন। তবে কবিতার মাধ্যমে তার বই প্রকাশ শুরু। এজন্য পুরস্কার প্রদানের জন্য কবিতাকে বেছে নিয়েছি।”

এখন থেকে প্রতিবছর এ পুরস্কার দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

২০০৪ সালের ২৭ ফেব্র”য়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক হুমায়ুন আজাদকে বাংলা একাডেমীর উল্টো দিকের রাস্তায় কয়েকজন সন্ত্রাসী হামলা করে গুরুতর আহত করে।

এ ঘটনায় দায়ের হত্যা প্রচেষ্টা মামলার এখন অধিকতর তদন্ত চলছে। মামলায় জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

হুমায়ুন আজাদ ১৯৪৭ সালের ২৮ এপ্রিল মুন্সীগঞ্জের বিক্রমপুরের রাড়িখালে জন্মগ্রহণ করেন। মারা যান ২০০৪ সালের ১১ অগাস্ট জার্মানিতে।

[ad#co-1]