মুন্সিগঞ্জে ধলেশ্বরীতে জাঁক জমকপূর্ণ নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত

দেশজ সংস্কৃতির অন্যতম ঐতিহ্য নৌকা বাইচের বিশাল উৎসব বসেছিল মুন্সিগঞ্জের ধলেশ্বরীতে। গতকাল শুক্রবার বিকালে এই উৎসবে লাখো মানুষের ঢল নামে। বন্দর নগরী মিরকাদিম থেকে মুন্সিগঞ্জ লঞ্চঘাট পর্যন্ত ৩ কিলোমিটার এই নদীর দু’তীর ছিল কানায় কানায় পূর্ন। তিল ধারণের ঠাই ছিলনা মুক্তারপুর ব্রিজে। এছাড়া হাজার হাজার নারী পুরুষ বিভিন্ন ধরনের নৌকায় করে এই উৎসব উপভোগ করে। হাজার হাজার জনতা বিভিন্ন শ্লোগান ও করতালি দিয়ে নৌকা বাইচকে স্বাগত জানায়। নৌকা বাইচ উপলক্ষে নদী বেশিষ্ট মুন্সিগঞ্জে ধলেশ্বরী নদী ছিল উৎসব মুখর। নৌকা বাইচের সময় দর্শকদের বিভিন্ন শ্লোগানে মুখরিত ছিল ধলেশ্বরী। উপভোগ করতে আসা মানুষ নেচে গেয়ে ও বিভিন্ন শ্লোগান দিয়ে দীর্ঘদিন পর অনুষ্ঠিত এই নৌকা বাইচকে স্বাগত জানান।

নৌকা বাইচের ৫০ মাল্লা গ্র“পে প্রথম হয়েছে মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানের বাইচ নৌকা তুফান। ২৫ মাল্লা গ্র“পে প্রথম হয়েছে শ্রীনগরের নৌকা একতা । ২ মাল্লা পুরুষ গ্র“পে প্রথম হয়েছেন রিপন হোসেন ও শরীফ হোসেন জুটি। এছাড়া ২ মাল্লাা স্বামী –-স্ত্রী গ্র“পে প্রথম হয়েছে জরিনা ও আমিনুদ্দিন দম্পতি। স্বামী-স্ত্রী দম্পতি নৌকা বাইচ এই প্রথম অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে আয়োজকরা জানান।

বিকালে মিরকাদিম বন্দর মাঠে নৌকা বাইচের উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ মহিউদ্দিন। এই সময় উপস্থিত ছিলেন,পুলিশ সুপার শফিকুল ইসলাম। বাইচ শেষে মুন্সিগঞ্জ লঞ্চ ঘাটের সামনে বিজয়ীদের মাঝে আনুষ্ঠানিক ভাবে পুরস্কার বিতরন করেন স্থানীয় সংসদ এম ইদ্রিস আলী ও মুন্সিগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষ এবং মহিলা সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম। পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুল সভাপতিত্ব করেন।

পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে বক্তরা বলেন,মুন্সিগঞ্জে নতুন প্রজন্মকে দেশজ সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচয় রাখা এবং আবহমান বাংলার এই ঐহিত্যকে ধারণ করার জন্যই সুপ্রাচীন ইতিহাস সমৃদ্ধ এই জনপদে নৌকা বাইচের আয়োজন করা হয়েছে।

মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি। ০১৯১১১৪২৬৭০
১৭.০৯.১০

[ad#co-1]