টংগীবাড়ীতে পদ্মার ভাঙ্গন ৩দিনে ৮০পরিবার ভূমিহীন

মসজিদে শেষ নামাজ
মুন্সিগঞ্জ টংগীবাড়ী উপজেলায় প্রমত্তা পদ্মার ভাঙ্গনে ৩দিনে ৮০ পরিবার ভূমিহীন হয়ে পরেছে। মসজিদ ভাঙ্গার আগ মুহূর্তে আসরের নামাজ আদায় করে নেয় মুসল্লিরা। উপজেলার দক্ষিন অঞ্চল কামারখাড়া, হাসাইল বানরী, পাঁচগাও ইউনিয়নে পদ্মায় পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে তীব্র স্রোতের কারনে এই ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। সরজমিনে দেখা যায়, ভাঙ্গন কবলীত কামারখাড়া ইউনিয়নের মাইজগাও, চৌউসার, মিতারা গ্রামে গিয়ে বসতবাড়ী, ফসলী জমি, স্কুল, মসজিদ ভেঙ্গে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। মাইজগাও জামে মসজিদে ইমাম সাহেব আসরের নামাজ জামায়ের সহিত পড়ানোর কিছু ক্ষন পরেই মসজিদের জমি নদী গর্ভে তলিয়ে যায়। উপায় না পেয়ে সহায় সম্বলহীন মানুষ গুলো হাসাইল টংগীবাড়ী রাস্তার উপর গরু বাছুর হাঁস মুরগি নিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। সে খানে তারা মানবেতর জীবন যাপন করছে। বসত বাড়ী ফসলী জমি নদি গর্ভে বিলিন হওয়ায় কাজকর্ম না থাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে অধ্যহারে অনাহারে জীবন যাপন করছে। নদী ভাঙ্গনের শিকার ওমর শেখ, জিগির আলী খান, সোহাগ শেখ, রতন খা জানায় ৫-৬ বার নদীতে বসতী হারিয়ে আজ তারা নিঃস ক্লান্ত চারদিক অন্ধকারাচ্ছন্ন লাগছে কি করব ভেবে পাচ্ছি না জীবন যুদ্ধে আজ আর পারছি না মাথা গোজাবার শেষ জায়গা টুকু আজ নদীতে নিয়ে গেল কোথায় কার কাছে যাব। জানা যায় নদী ভাঙ্গল রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের তদারকিতে সরকার ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে হাসাইল পাচগাও ইউনিয়নের ভাঙ্গন কবলিত স্থানে সি সি ব্লক দিয়ে ভাঙ্গন রোধ প্রকল্প নিয়ে কাজ করছে ভাঙ্গন কবলীতদের দাবী ভাঙ্গন রোধে সরকার যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।

মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি। ০১৯১১১৪২৬৭০
১৫.০৯.১০

[ad#co-1]