লৌহজংয়ে ইভটিজিং নিয়ে হামলা ভাংচুর ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ॥ আহত ৮

মুন্সিগঞ্জে নৌকাডুবি
সোমবার বিকালে ইভটিজিং নিয়ে লৌহজং উপজেলায় কুমারভোগ গ্রামে হামলা ভাংচুর ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ৮ জন আহত হয়েছে। ইভটিংিয়ের শিকার ইতির ভাই আহত ভাই মাসুদ(২৮) মা শাহানা বেগমকে (৪৫) বাবা শহিদ মোল¬া(৫৫) এবং গ্রামবাসী অলিসহ (৩৮) ৮জনকে লৌহজং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি ও চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে দারোগা কুতবিউদ্দিন এসব তথ্য দিয়ে বিকাল পৌনে ৬টায় জানান, স্থানীয় মেদিনীমন্ডল আনোয়ার চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী ইতি আক্তারকে (১২) বখাটে দেলোয়ার হোসেন (১৯) ও তার সহযোগীরা মাওয়া চৌরাস্তায় স্কুলে যাওয়া আসার পথে উত্ত্যক্ত করতো।

এই নিয়ে বখাটে দেলোয়ার ও সহযোগী সুমন, শামীম, নুরুজ্জামান, রনি, মহসিন, হামিদের বিরুদ্ধে সোমবার দুপুরে মাওয়ায় সালিশ বৈঠকে তিরস্কার করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বখাটে দেলোয়ারারের নেতৃত্বে স্কুল ছাত্রীর বাড়িতে বিকালে হমালা চালায়। এতে ইতির ভাই মাসুদ মা শাহানা বেগমকে (৪৫) হয়। খবর পেয়ে সালিশ পক্ষের ৪০/৫০ প্রতিরোধে এগিয়ে আসলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। ইভটিজার গ্র“পের লোকজন মাওয়ার চৌরাস্তার কাছে কুমারভোগ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছের ২টি বাড়ি ও ৫টি দোকান সামান্য ভাংচুর করে।
লৌহজং থানার ওসি হেলাল উদ্দিন জানান, মেয়ে পক্ষ থেকে থানায় একটি লিখিত দেয়ার প্রস্তুতি চলছে। তবে উপজেলার চেয়ারম্যান ঐ গ্রামের বান্দি হাওয়ায় তিনিই বিষয়টি মিটিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছেন।

বখাটে দেলোয়ার হোসেন (১৯) একই গ্রাম কুমারভোগের মালেকা বানুর পুত্র। দেলোয়ার এলাকায় নেশাগ্রস্ত ও বখাটে হিসাবে পরিচিত। তা বাবার নাম জানা যায়নি। মা এলাকায় ঝিয়ের কাজ করে।

মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি। ০১৯১১১৪২৬৭০
১৩.০৯.১০

[ad#co-1]