এবার ৫০০ যাত্রী নিয়ে ফেরি আটকা

নাব্যতা সঙ্কটে মাওয়া-চরজানাজাত (কাওড়াকান্দি) নৌ-পথে পদ্মার মাঝামাঝি স্থানে ৫০০ যাত্রী ও ২০টি যানবাহনসহ শনিবার সকালে একটি রো রো ফেরি আটকা পড়েছে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সকাল ৮টার দিকে মাওয়া থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে কাওলিয়ার চরের কাছে আটকা পড়েছে রো রো ফেরি শাহ মখদুম। সেটি উদ্ধারে উদ্ধারকারী জাহাজ রওনা হয়েছে। ওদিকে, মাওয়া থেকে চার কিলোমিটার দূরে কাওলিয়ারচর-হাজরা চ্যানেলের মুখে শুক্রবার সকাল পৌনে ৮টার দিকে আটকা পড়া রো রো ফেরি ভাষা শহীদ বরকত শনিবার ভোর সোয়া ৫টার দিকে উদ্ধার হয়েছে। ফেরিটিতে কমপক্ষে দুইশ’ যাত্রী এবং ট্রাক-বাস ও ছোট গাড়িসহ ২০টিরও বেশি যানবাহন ছিলো।

বিআইডব্লিউটিসির মাওয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) সিরাজুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, শাহ শখদুম সকাল সাড়ে ৬টায় মাওয়া থেকে কাওড়াকান্দির উদ্দেশে রওনা হয়। নাব্যতা সঙ্কটে সেটি পথে কাউলিয়ার চরের কাছে সকাল ৮টার দিকে ডুবচরে আটকা পড়েছে। ফেরিটি উদ্ধারে উদ্ধারকারী জাহাজ আউটি (টাগ) ৩৯৭ পাঠানো হয়েছে।

তিনি জানান, মাওয়া থেকে চার কিলোমিটার দূরে কাওলিয়ারচর-হাজরা চ্যানেলের ডুবোচরে শুক্রবার সকাল ৮টার দিকেও একবার শাহ মখদুম আটকা পড়ছিলো। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই তা উদ্ধার করা হয়।

এরপর দুপুর ১২টার দিকে চ্যানেলটি পরিত্যক্ত ঘোষণার পর নতুন চ্যানেল মাওয়া-কবুতর খোলা-কাওলিয়ারচর-চরজানাজাত পথে রো রো ফেরি শাহ মখদুম ও ফেরি রাণীগঞ্জ মাওয়া থেকে চরজানাজাতের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

বিআইডব্লিউটিসি কর্মকর্তা জানান, ২০ কিলোমিটারের এ চ্যানেলে বর্তমানে মাত্র পাঁচ থেকে সাত ফুট পানি রয়েছে।

নতুন এ চ্যানেল দিয়ে রো রো ফেরিতে মাওয়া থেকে চরজানাজাত পৌঁছতে সময় লাগছে এক ঘণ্টা বেশি। এখন মাওয়া থেকে চরজানাজাত পৌঁছতে রো রো ফেরির তিন ঘণ্টা এবং ছোট ফেরিগুলোর চার ঘণ্টা সময় লাগছে।

নতুন চ্যানেলে সময় বেশি লাগায় ফেরির ট্রিপ সংখ্যাও কমে গেছে। এর ফলে নৌ-পথটির মাওয়া ও চরজানাজাত দুপ্রান্তেই তীব্র যানযট সৃষ্টি হয়েছে।

বিডি নিউজ 24

—————————————

পদ্মায় ৬শ’যাত্রীসহ ফেরি মুকদম আটকা ॥ ২১ ঘন্টা পর উদ্ধার হয়েছে ফেরি বরকত ॥ যানযট

শনিবার সকালে (৮টায়) মাওয়া- কাওড়াকান্দি নৌ রুটে নাব্য সংকটে মাঝ পদ্মায় ৬’শ যাত্রীসহ ২০ টি যান নিয়ে আটকা পড়েছে রো রো ফেরি শাহ মুকদম। এটি উদ্ধারে উদ্ধারকারী জাহাজ রওনা হয়েছে। এদিকে ২১ ঘন্টা পরে উদ্ধার হয়েছে রো রো ফেরি ভাষা শহীদ বরকত। ২০টি যান নিয়ে এই ফেরিটি শুক্রবার সকাল পৌনে ৮টায় পুরানো চ্যানেলে আটকা পড়ে। এই স্থান থেকে প্রায় আধা কিলোমিটার এবং মাওয়া থেকে দেড় কিলোমিটার দুরে কাউলিয়ার চরের কাছে আটকা পড়ে ফেরি শাহ মুকদম । আটকা পড়া ফেরি শাহ মুকদমে ১০ টি বড় বাস, ৮টি প্রাইভেট কার ও ২টি ট্রাক রয়েছে। এগুলোর প্রায় ৬’শ যাত্রী আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসি’র মাওয়াস্থ ম্যানেজার  সিরাজুল ইসলাম জানান, ভোর সাড়ে ৬টায় ফেরিটি মাওয়া থেকে কাওড়াকান্দির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। এটি উদ্ধারে উদ্ধারকারী জাহাজ আইটি ৩৯৭ ঘটনাস্থলে  রওনা হয়েছে। ভরা বর্ষায় নাব্য সংকটের কারণে বারবার ফেরিগুলো আটকা পড়ছে এবং চ্যানেল পরিবর্তন করা হচ্ছে। এতে পারাপারের দুরত্ব বেড়ে যাচ্ছে। যাত্রী দুর্ভোগ ক্রমশই বাড়ছে। এ রিপোর্ট লেখার সময় উভয় পারে যানযট রয়েছে।

মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি। ০১৯১১১৪২৬৭০

বিক্রমপুর সংবাদ

———————————–

[ad#co-1]