কিলার বগা ফারুকের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

মুন্সিগঞ্জে প্রবাসী শিল্পপতি মোশারফ হত্যাকান্ড
কিলার মিঠু জেল হাজতে
গ্রীস প্রবাসী শিল্পপতি মোশারফ হোসেন হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত ভাড়াটে খুনী বগা ফারুক বুধবার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক এই জবানবন্দিতে এই হত্যাকান্ডের পরিকল্পনা এবং হত্যাকান্ডের সময় পিস্তল প্রদর্শন করে লোকজনকে ভয় দেখানোর কথা ফারুক স্বীকার করে। ফারুক জানায়, ঘটনার দু’দিন আগে তার বাসায় এই হত্যাকান্ডের চুক্তি হয় মোশারফের সৎভাই বেলায়েত ও কিলার মিঠুর সাথে। বুধবার এই জবানবন্দি রেকর্ড করেন মুন্সিগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রবিউল ইসলাম।

সেই অনুযায়ী ঘটনার দিন ১০ আগস্ট দু’টি মোটরবাইকে করে যাত্রাবাড়ি থেকে বেলায়েত ও মিঠুসহ চার জন মুন্সিগঞ্জ হরগঙ্গা কলেজে আসে। ফোনে বেলায়েত মোশারফের স্ত্রীর কাছ থেকে মোশারফের অবস্থান অবগত হয়। হত্যাকান্ডের কিছু আগে রিক্সায় করে কলেজের সামনে দিয়ে যাচ্ছিল মোশারফ। এই সময় বেলায়েত বলে-এই গোলো গোলো রিক্সা …। এই সময় ফারুক বেলায়েতের উদ্দেশ্যে বলে “আপনি ব্যস্ত হইয়েন না আপনার কাজ হবে।”

এর পরই মোটরবাইকে করে গিয়ে শহরের লিচুতলাস্থ বাস কাউন্টারের সামনে গুলি চালায় মিঠু। মোশারফের রক্তাক্ত দেহ মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। তখন “ফারুক পিস্তল উচিয়ে লোকজনকে ভয় দেখায় এবং পিস্তল তাক করে মোটর সাইকেলে করে স্থানীয় বাগেশ্বর হয়ে সিপাহিপাড়ায় আসে। পরে ভাগ ভাগ হয়ে চলে যায় যার যার আস্তানায়। পরে বেলায়েত বাসায় গিয়ে তাকে ১০ হাজার টাকা দিয়ে আসে। আরও টাকা পরে দিবে বলে জানায়। এসব তথ্য দিয়ে মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, এর আগে বগা ফারুকের স্ত্রী কেয়া আক্তার (২০) গত ২৮ আগস্ট একই আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জাবানবন্দিতে তাদের বাসায় হত্যার পরিকল্পনার কথা স্বীকার করেছেন।

এদিকে মোশারফের প্রধান কিলার নাসিরউদ্দিন মিঠুকে (২৫) মঙ্গলবার বিকেল ৫ টায় ঢাকার যাত্রাবাড়ির একটি হোটেল থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে বুধবার আদালতে হাজির করে ১০ দিনে রিমান্ড আবেদন করে। সরকারি ছুটির কারণে রিমান্ড শুনানী হয়নি। মিঠুকে জেল হাজতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। উল্লেখ্য মোশারফ হত্যাকান্ডে ঘটনায় পুলিশ ইতিপুর্বে মোশারফের স্ত্রী রেশমা ও কিলার বগা ফারুককে গ্রেফতার করে। এই ঘটনায় এখন মোট ৩ জন জেল হাজতে রয়েছে। তবে রেশমার সাথে দু’বছরের শিশু রেজোয়ানও রয়েছে। তবে রেশমার প্রমিক বেলায়েত ও অপর কিলার এখনও গ্রেফতার হয়নি।

এ ঘটনায় নিহতের মা হাজেরা বেগম বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ আরও জানায়, নিহতের স্ত্রী রেশমার সঙ্গে মোশারফের সৎ ভাই বেলায়েতের পরকিয়া সম্পর্কের কারণে এই হত্যাকান্ড ঘটে বলে পুলিশ তদন্তে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে। গত ১০ আগস্ট মুন্সীগঞ্জ শহরের লিচুতলাস্থ নতুন বাসস্টান্ডে মোটরসাইকেল আরোহী সন্ত্রাসীদের গুলিতে মোশারফ হোসেন নিহত হন। সে ঢাকা থেকে মুন্সীগঞ্জে শ্বশুরবাড়িতে এসেছিল।

মোহাম্মদ সেলিম,মুন্সিগঞ্জ।০১৯১১১৪২৬৭০

[ad#co-1]

Leave a Reply