সিনথিয়া, প্রিয় বোন আমার

বখে যাওয়াদের বিরুদ্ধে তোমাদের যূথবদ্ধ মিছিলের ছবিটি পত্রিকার পাতায় আমি দেখেছি।
আশান্বিত হয়েছিলাম, ইভ টিজিং প্রতিরোধে তোমাদের সম্মিলিত শপথ প্রেরণার ফুল হয়ে ছড়িয়ে পড়বে আমাদের শহর, গ্রাম, জনপদে। তোমাদের বিদ্রোহের ভাষা কাঁপন ধরিয়ে দেবে বিপথগামীদের বুকে। আমি সত্যি খুশি হয়েছিলাম_আমাদের বোনেরা জানে কিভাবে অন্যায় আর অসুন্দরের বিরুদ্ধে বাঁচতে হয়।
কিন্তু এ কী হলো!

এ-ও কি বিশ্বাস করতে হবে আমাকে?
মিছিলে যে ছিল সাহসের সবুজ সাগর_সে নেই। প্রতিবাদে যে ছিল প্রেরণার পাখি_সে নেই। আমাদের মিছিলকে মৌন করে, আমাদের সাহসকে শূন্য করে, আমাদের স্বপ্নকে চূর্ণ করে_সে কেন চলে যাবে? এভাবে চলে যেতে নেই, সিনথিয়া।

আগামী মিছিলগুলোতে তোমাকে যে বড় প্রয়োজন ছিল, বন্ধু। কার জন্য এই চলে যাওয়া? ওই অভিশপ্তদের জন্য নিজের ওপর কেন এত অভিমান?
এই পৃথিবীটা তো শুধু ‘জাহাঙ্গীরদের’ নয়। শুধুই ‘নষ্টদের’ নয় সব কিছু। কিছু মানবিক মন এখনো তো আছে। বাবা আর ভাইয়ের ভালোবাসা আছে। মায়ের মমতা আছে অবারিত। আছে বন্ধু-সুজন।
তাদের জন্য তোমাকে বড় প্রয়োজন ছিল।

মাকে দ্যাখো_তোমাকে হারিয়ে তিনি কেমন কাতর। সবুজ প্রজাপতিটিকে দ্যাখো_সে বড় আহত। দ্যাখো তোমার বন্ধুদের, তারা কাঁদছে। আমাদের কাতর মা, আহত প্রজাপতি আর বন্ধুদের জন্য তোমাকে বড় প্রয়োজন ছিল, সিনথিয়া। দ্যাখো_তোমার বিরহে বড় বিষণ্ন আমাদের বুকের বাগান।
সিনথিয়ারা, তুমি কি জানতে না, জীবন কত সুন্দর আর ঐশ্বর্যময়! জীবনের কোনো বিকল্প নেই। একটাই তো জীবন আমাদের। তাকে অবহেলা করা অন্যায়। মস্ত পাপ।

কিছু অভিমান থাকবে, কিছু করুণ কষ্ট থাকবে_তাকে জমা দাও ‘ভালোবাসার যৌথ খামারে।’ কে বলে তুমি একা? কে বলে তোমার কোনো সমব্যথী নেই? চেয়ে দেখ, আমরা আছি অসংখ্য ভাই-বন্ধু। তুমি কি আমাদের ভালোবাসা বুঝতে পার না?
বন্ধু, ভুল সিদ্ধান্তটি নেওয়ার আগে একবার চোখ বন্ধ করো। দ্যাখো_পৃথিবী এখনো অপরূপ। একবার ভাবো, জীবনের সুন্দর মুহূর্তগুলো। দেখতে পাচ্ছো? জীবন কী সুন্দর! খরভব রং নবধঁঃরভঁষ.

ওমর ফারুক
ঢাকা বিশ্বাবদ্যালয়

[ad#co-1]

One Response

Write a Comment»
  1. SUndor lekhar Dhong.. Valo Laglo…