মুন্সিগঞ্জে পালিত হলো জাতীয় শোক দিবস

জাতীয় শোক দিবসে মুন্সিগঞ্জে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় শোক র‌্যালি বের হয়। সকালে কালেক্টরেট প্রাঙ্গণ থেকে শহর ঘুরে ব্যতিক্রম এই র‌্যালিটি জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে এসে শেষ হয়। বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন ছবি ও স্লোগান সংবলিত প্ল্যাকার্ড ব্যানার ও ফেস্টুন র‌্যালিতে শোভা পায়। র‌্যালির প্রথমেই বঙ্গবন্ধুর বিশাল পোর্টেট ছিল ফুল দিয়ে সাজানো। অর্ধনমিত জাতীয় পতাকা ও কালো পতাকা নিয়ে স্কাউট সদস্যরা পোর্টেটটি বহন করে। এর পেছনেই বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা জানাতে আসা মানুষের ঢল। পরে শিল্পকলা ভবনে কবিতা আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং শিল্পকলা মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনার মাঝে ডিজিটাল প্রেজেন্টেশন বঙ্গবন্ধুর প্রামাণ্যচিত্র বড় পর্দায় প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন বঙ্গবন্ধুর চিফ সিকিউরিটি সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুল আলমের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোঃ শফিকুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস, তোফাজ্জল হোসেন, মোহাম্মদ হোসেন বাবুল, আলী আহম্মেদ বাচ্চু, মোঃ জামাল, প্রেসক্লাব সভাপতি মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সভাপতি মতিউল ইসলাম হিরু প্রমুখ। প্রায় একই সময়ে টঙ্গীবাড়িতে আরেকটি শোক র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন জাতীয় সংসদের হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি এমপি। তিনি টঙ্গীবাড়ি ও লৌহজং উপজেলার জাতীয় শোক দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নেন। এছাড়া শ্রীনগর, সিরাজদিখান, গজারিয়ায়ও দিবসটি পালন উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এছাড়া জেলা ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এবং বিএমএ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

[ad#co-1]