স্ত্রীর পরকীয়ায় সৎ ভাইয়ের হাতে স্বামী খুন

নিজ সৎ ভাইয়ের সঙ্গে স্ত্রীর পরকীয়ার সম্পর্ক থাকায় বলি হলেন স্বামী মোশারফ হোসেন (৫০)। মুন্সিগঞ্জের পাজারো নামক স্থানে সৎ ভাইয় বিল্লাল তাকে গুলি করে হত্যা করে। প্রবাসী গার্মেন্টস ব্যবসায়ী মোশারফের বাসা রাজধানীর উত্তর যাত্রাবাড়ির ২৪/১ নম্বর। শহরের পাঁচঘরিয়াকান্দির শ্বশুরালয় থেকে ঢাকায় ফেরার পথে আজ মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, প্রবাসী গার্মেন্টস ব্যবসায়ী মোশারফ গ্রীসে বাস করেন। এ সুযোগে তার সৎ ভাই বিল্লালের সঙ্গে স্ত্রী রেশমা আক্তার অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। গত রোববার দেশে এসে মোশারফ বিষয়টি জানতে পারেন। এতে বেল্লালের সঙ্গে তার সম্পর্কের অবন্নতি ঘটে। এ কারণেই শ্বশুর বাড়ি থেকে বাসায় ফেরার পথে সৎ ভাই বেল্লাল তাকে আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় পাজারো নামক স্থানে গুলি করে পালিয়ে যায়। তার বুকে ১টি ও পেটে ২টি গুলি লাগে। এ সময় লোকজন তাকে মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে কতর্ব্যরত চিকিৎসক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। সেখানে রাত ৮টায় তার মৃত্যু হয়। তার আমেনা (৬) ও রেজাউল (২) নামের ২টি সন্তান রয়েছে। সাত বছর আগে মুন্সিগঞ্জ শহরের পাঁচঘরিয়াকান্দির হোসেন মিয়ার মেয়েকে তিনি বিয়ে করেন।

তার মামাশ্বশুর বাদল মিয়া শীর্ষ নিউজ ডটকমকে জানান, গ্রীসে মোশারফের নিজস্ব গার্মেন্টস রয়েছে। সেখানে তিনি বাস করলেও স্ত্রী সন্তান দেশেই থাকতো।

পুলিশ সুপার মো.সফিকুল ইসলাম জানান, বিষয়টি শুনেছি। তবে এখনো কোন মামলা হয়নি। মামলা হলে পুলিশ আসামীদের ধরতে চেষ্টা চালিয়ে যাবে।

শীর্ষ নিউজ
—————————————————————-

মুন্সীগঞ্জে প্রবাসী শিল্পপতিকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

মঙ্গলবার বিকেল সোয়া ৬টায় মুন্সীগঞ্জ শহরের নতুন বাসস্ট্যান্ডে সন্ত্রাসীদের গুলিতে প্রবাসী শিল্পপতি মোশারফ হোসেন (৪০) নিহত হয়েছেন। কাছ থেকে তাঁর বুকে ১টি ও পেটে ২টি গুলি করা হয়। রক্তাক্ত অবস্থায় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। উপস্থিত লোকজন তাৎক্ষণিক মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক প্রথমে মৃত ভাবলেও পরে প্রাণের অসত্মিত্ব পেয়ে দ্রম্নত উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পাঠিয়ে দেন। তাৎক্ষণিক স্বজন না পেয়ে উপস্থিত পুলিশ এ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় নিয়ে যায়। তবে রাত সাড়ে ৮টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

তাঁর বাড়ি ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে। শহরের পাঁচঘরিয়াকান্দির শ্বশুরালয় থেকে ঢাকায় ফেরার পথে এই ঘটনা ঘটে। তিনি রবিবার গ্রীস থেকে বাংলাদেশে আসেন। সনত্মানের পরীক্ষা থাকায় স্ত্রী রেশমা আক্তারকে ছাড়াই তিনি শ্বশুরালয়ে সকালে আসেন দেখা করতে। গ্রীসে মোশারফের নিজস্ব গার্মেন্টস রয়েছে বলে জানান মামাশ্বশুর বাদল মিয়া। তার আমেনা (৬) ও রেজাউল (২) নামের ২টি সনত্মান রয়েছে। তারা ঢাকায় থাকেন। সাত বছর আগে শহরের পাঁচঘরিয়াকান্দির হোসেন মিয়ার কন্যাকে তিনি বিয়ে করেন।

প্রত্যক্ষদশর্ীরা জানায়, রিঙ্া থেকে নেমে ডিটিএল বাস কাউন্টারে যাওয়ার মুহূর্তে খুব কাছে থেকে পর পর ৩ রাউন্ড গুলি ছোড়ে চার সন্ত্রাসী ২টি মোটরবাইকে করে দক্ষিণ দিকের রাসত্মা দিয়ে পালিয়ে যায়।

পুলিশ সুপার মোঃ সফিকুল ইসলাম রাতে জানান, এই ঘটনার কারণ এখনও জানা যায়নি। পুলিশ সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে ঘটনাটি রহস্যাবৃত মনে হচ্ছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যনত্ম মামলা হয়নি। পুলিশ এখনও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

শহরের প্রাণকেন্দ্রের প্রকাশ্য দিবালোকে এমন নৃশংস ঘটনা ঘটিয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যেতে সৰম হওয়ায় শহরবাসী বিস্ময় প্রকাশ করেছে। এই খবরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে মফস্বল শহরটিতে।

জনকন্ঠ
—————————————————————————————-

মুন্সীগঞ্জে প্রবাসী শিল্পপতি খুন

জেলা শহরের নতুন বাস স্ট্যান্ডে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দুর্বৃত্তের গুলিতে এক প্রবাসী শিল্পপতি নিহত হয়েছেন।

নিহত মোশারফ হোসেন (৪০) কয়েকদিন আগে গ্রিস থেকে আসেন বলে তার পরিবারের স্বজনরা জানান।

পুলিশ এ ঘটনায় কাউকে সন্দেহ না করলেও মোশারফের পরিবারের সদস্যদের দাবি, স্ত্রীর অনৈতিক সম্পর্কের জেরে মোশারফ খুন হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যা ৬টার দিকে রিকশা থেকে নেমে ঢাকাগামী বাসের একটি বাস কাউন্টারে যাওয়ার সময় খুব কাছে থেকে পরপর তিন রাউন্ড গুলি করে দুই মোটরসাইকেলে আসা চার দুর্বৃত্ত পালিয়ে যায়।

তার বুকে একটি এবং পেটে দুইটি গুলি লাগে।

স্থানীয়রা প্রথমে তাকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেন। পরে ঢাকা পাঠানো হয়। রাত সাড়ে ৮টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান।

পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট মো. সফিকুল ইসলাম রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এই ঘটনার কারণ এখনো জানা যায়নি। তবে ঘটনাটি রহস্যাবৃত বলে মনে হচ্ছে।

এখনো মামলা হয়নি। কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

মোশারফের মামা শ্বশুর বাদল মিয়া জানান, মোশারফের বাড়ি ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে। মুন্সীগঞ্জ শহরের পাঁচঘরিয়াকান্দির শ্বশুরালয় থেকে ঢাকা ফেরার পথে এ ঘটনা ঘটে।

রোববার তিনি গ্রিস থেকে দেশে আসেন। মঙ্গলবার সকালে মুন্সীগঞ্জ আসেন শ্বশুরবাড়ির লোকজনের সঙ্গে দেখা করতে।

বাদল মিয়া আরো জানান, গ্রিসে মোশারফের নিজের গার্মেন্টস কারখানা রয়েছে।

তার দুই সন্তান হল-আমেনা (৬) ও রেজাউল (২)। সাত বছর আগে মুন্সীগঞ্জ শহরের পাঁচঘরিয়াকান্দির হোসেন মিয়া মেয়ে রেশমা আক্তারকে বিয়ে করেন তিনি। তার স্ত্রী-সন্তান ঢাকায় থাকে।

এদিকে নিহত মোশারফের মা হাজেরা বেগম অভিযোগ করেছেন, তার সতীনের ছেলে (মোশারফের সৎভাই) বেলায়েত হোসেনের সঙ্গে মোশারফের স্ত্রী রেশমার অনৈতিক সম্পর্ক ছিল। এর জেরে বেলায়েত এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।

তবে বেলায়েতের সহোদরা বেবী আক্তার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বেলায়েতের বিরুদ্ধে এ অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই। তবে তদন্তে সে দোষী প্রমাণিত হলে তার অবশ্যই শাস্তি হবে।

বিডি নিউজ 24

[ad#co-1]