একখণ্ড বাঁধন

নামের সঙ্গে মিল রেখেই বাঁধন শিল্পের সঙ্গে নিজের একটি বন্ধ তৈরি করেছেন। খুব বেশি কাজ তার করা না হলেও এরই মধ্যে তিনি দর্শকদের মাঝে নিজেকে অন্যদের তুলনায় আলাদাভাবে উপস্থাপন করেছেন। মডেলিং, নাটক ও চলচ্চিত্রে বাঁধন নিজের গা ভাসিয়ে দিয়েছেন একটি বৈচিত্র্যময়ভাবেই। লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অর্জনকারিণী এই অনিন্দ্য সুন্দরী এবার আমাদের দশে-দশ বিভাগে তার বিভিন্ন টুকরো গল্প নিয়ে হাজির হয়েছেন।

প্রথমনামা

প্রথম বিদেশ ভ্রমণ: হল্যান্ড
প্রথম শাড়ি পরা:মনে নেই (অনেক ছোটবেলায় হবে হয়তো)
প্রথম মাছ ধরা: এই অভিজ্ঞতা নেই
প্রথম পারফরমেন্স: লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় অডিশন রাউন্ডে
প্রথম খ্যাতি: লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অর্জন
প্রথম ধারাবাহিক: চন্দ্রকারিগর
প্রথম বিজ্ঞাপন: সানসিল্ক শ্যাম্পু
প্রথম বিদেশে শুটিং: থাইল্যান্ড
প্রথম অর্জন: ক্লাস ফাইভে স্কলারশিপ পাওয়া
প্রথম প্রেম: পড়াশোনা
প্রথম নাটক: বুয়া বিলাস

বৃত্তান্ত

পুরো নাম: আজমেরী হক বাঁধন
যে নামে পরিচিতি:বাঁধন
ডাক নাম: বাঁধন
জš§ তারিখ: ২৮ অক্টোবর
সময়:সাড়ে ১২টা
জš§স্থান: ঢাকা
বাবার নাম: মোঃ আমিনুল হক
দাদার নাম: আবদুল মন্নাফ ঢালী
পৈতৃক নিবাস: বিক্রমপুর
মায়ের নাম: চামেলী হক
নানার নাম: আবদুল বারী খান
নানার বাড়ি: বিক্রমপুর
বাবা-মায়ের বিয়ে: ২১ জানুয়ারি
ভাইবোন: দুই ভাই এক বোন
উচ্চতা: ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি
শিক্ষা: বিডিএস

অন্যান্য

এ পর্যন্ত ভ্রমণ:ব্যাংকক, মালয়েশিয়া, নেপাল, ইন্ডিয়া, দুবাই, ইংল্যান্ড, বেলজিয়াম, ইতালি, ফ্রান্স
মোট অভিনীত নাটক: এটা বলা মুশকিল
মোট ধারবাহিক: ৪-৫টা
মোট বিজ্ঞাপন: তিনটা
প্রিয় কয়েকটি নাটক: কোথাও কেউ নেই, আজ রবিবার, নক্ষত্রের রাত, ৫১ বর্তী, সিক্সটি নাইন
প্রিয় মুহূর্ত: যখন আমার ফ্যামিলির সাথে থাকি
প্রিয় ব্যক্তিত্ব সেভাবে কাউকে ভেবে দেখিনি
প্রিয় রঙ: লাল
প্রিয় পোশাক: শাড়ি
প্রিয় কাজ: এখনো করা হয়ে ওঠেনি
প্রিয় উপন্যাস: আলাদা করে বলা যাবে না
অবসরে করি: ঘুমাই, শপিং করি
যে বই বার বার পড়ি: হুমায়ূন আহমেদের অনেক বই আমার বার বার পড়া হয়েছে
মানুষের যে গুণটি বেশি ভালো লাগে: সিমপ্লিসিটি ও অনেস্টি
মানুষের যে কাজ খারাপ লাগে: মিথ্যা বলা (কারণ মিথ্যাবাদীরা সবকিছু করতে পারে)

সাফল্যের সংজ্ঞা: এটা একেক জনের কাছে একেক রকম হয়। কেউ তেত্রিশ পেয়ে পাশ করাকে সাফল্য মনে করে, আবার কেউ আশি পাওয়াকে সাফল্য হিসেবে ধরে নেন।

[ad#co-1]