বন্ধের আশঙ্কা মাওয়া-কাওড়াকান্দি ফেরি সার্ভিস

চ্যানেলের মুখে ডুবোচর
পদ্মায় ঘূর্ণাবর্তে পলি জমে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরম্নটের ক্রস চ্যানেলের কাছে বিশাল ডুবোচর দেখা দেয়ায় ফেরি চলাচল হুমকির মধ্যে পড়েছে। যে কোন সময় বন্ধ হয়ে যেতে পাড়ে এ ক্রস চ্যানেল। আর এ চ্যানেলটি বন্ধ হয়ে গেলে কয়েক কিলোমিটার এলাকা ঘুরে পদ্মা পাড়ি দিতে হবে। যা যাত্রীসাধারণের ভোগানত্মি অনেকাংশে বাড়বে। জরুরী ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা না গেলে এই চ্যানেল সচল রাখা সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছেন বিআইডব্লিউটিসির মাওয়ায় কর্মরত এজিএম মোঃ আশিকুজ্জামান।

মাওয়া বিআইডব্লিউটিসি মেরিন অফিসার আব্দুল সোবাহান জানান, উজান থেকে পাহাড়ী ঢলের পানির সঙ্গে পলি মাটি নেমে আসায় মাওয়া ফেরি ঘাট থেকে ৫ কিমি দূরে মাওয়া-হাজরা ক্রস চ্যানের মুখে কাউলিয়ার চরের কাছে পদ্মায় ঘূর্ণাবর্তের কারণে পলি জমে ডুবোচরের সৃষ্টি হয়েছে। পদ্মায় এ জায়গায় এ ভরা বর্ষায় মাত্র ৯ ফুটের মত পানি বিদ্যমান রয়েছে । যা ফেরি চলাচলের জন্য ঝুঁকি পূর্ণ। অব্যাহত পলি পড়ার কারণে প্রতিদিনই ক্রস চ্যানের মুখে নাব্য সঙ্কট বৃদ্ধি পাচ্ছে। জরম্নরী ভিত্তিতে এখানে সার্ভে করে চ্যানেলের অবস্থান নির্ণয় না করলে ঘূর্ণাবর্তের কারণে ক্রস চ্যানেলের মুখে পলি জমে চ্যানেলটি যে কোন সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে। এই ক্রস চ্যানেলটি বন্ধ হয়ে গেলে দক্ষিণবঙ্গের ২৩ জেলার যাত্রীসাধারণকে তখন এ নৌরম্নটে কয়েক কিমি পথ ঘুরে পূর্বের কোন চ্যানেল দিয়ে ফেরিগুলোকে এ নৌপথ পারি দিতে হবে। আর তা হলে ফেরি পারাপারে সময় লাগবে দ্বিগুণেরও বেশি।

জরম্নরী ভিত্তিতে সার্ভে করে এ ক্রস চ্যানেলটি রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে চ্যানেলটির মুখ বন্ধ হয়ে অকার্যকর হয়ে যেতে পারে এ ক্রস চ্যানেল। বিআডবিস্নউটিসি মাওয়া অফিসের এজিএম আশিকুজ্জামান জানান, মেরিন অফিসার সার্ভে করে দেখেছেন এখানে একটি ডুবোচরের সৃষ্টি হতে চলেছে। ক্রস চ্যানেলের মুখে এ ডুবোচরের কারণে চ্যানেলটির মুখে নাব্য সঙ্কট সৃষ্টি হওয়ায় ফেরি চলছে ঝুঁকির মধ্যে। যে কোন সময় চ্যানেলটি বন্ধ হয়ে যেতে পারে জানিয়ে জরম্নরী ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিআইডবিস্নউটিসি ও বিআইডবিস্নউটিএর উর্ধতন কর্মকর্তাদের সোমবার অবহিত করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

বর্তমান সরকার সম্প্রতি এই ক্রস চ্যানেলটি চালু করে এই মাওয়ার ফেরি পারাপার সহজ করেছিল।

[ad#co-1]