কমানো হয়েছে পাসপোর্ট ফি

রাহমান মনি
টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস পাসপোর্ট সংক্রান্ত বিষয়ে অতিরিক্ত ফি আদায় করছে। এই অভিযোগটা দীর্ঘদিন যাবৎ করেই আসছিল জাপান প্রবাসীরা। দূতাবাস আয়োজিত বিভিন্ন সভা-সেমিনারে রাষ্ট্রদূতের উপস্থিতিতে এ প্রতিবেদক নিজেও উচ্চহারে ফি আদায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার এবং বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে আসছিলেন এবং পত্রপত্রিকায় লেখালেখির মাধ্যমে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আসছিলেন।

জাপানে ৫ বছর মেয়াদী একটি পাসপোর্ট এক সপ্তাহের মধ্যে (জরুরি) পেতে হলে ফি গুনতে হতো একুশ হাজার ইয়েন (প্রায় ২৩০ ডলার)। সাধারণ এর ক্ষেত্রে এফি ১৪ হাজার ইয়েন। সময় লাগে সর্বনিম্ন ৩ সপ্তাহ থেকে সর্বোচ্চ (?) অনির্ধারিত। চার গুণেরও বেশি। যা সম্পূর্ণ অযৈৗক্তিক।

জাপানিজ পাসপোর্ট মেশিন পাঠযোগ্য এবং উন্নত প্রযুক্তির। সেই সঙ্গে উন্নত মানেরও। বিপরীতে বাংলাদেশি পাসপোর্ট হাতে লেখা। বাকিটা না বলাটাই বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ, এ নিয়ে বিভিন্ন অভিজ্ঞতার কথা বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় লেখালেখি হয়েছে বিস্তর। এই তো কিছুদিন আগে ইয়াকুব মুনশীর ‘বিয়াকুব মুনশীর” কিয়াকুব’ কা-ের কথা কানাডা প্রবাসী জাকির হোসেনের অভিজ্ঞতার কথা ‘সাপ্তাহিক’ (বর্ষই সংখ্যা ৪৯ ২২ এপ্রিল ২০১০)-এর মাধ্যমে বিশ্ব বাংলাভাষীরা জানতে পেরেছে।

যেসব সাতকাহন আমার আলোচ্য বিষয় নয়। টোকিও বাংলাদেশ দূতাবাস অবশেষে পাসপোর্ট ফি কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং কার্যকারিতা শুরুও হয়েছে। এতদসংক্রান্ত দূতাবাস জারিকৃত একটি নোটিস প্রবাসীদের সুবিধার্থে সংযুক্ত করা গেল।

মেশিন পাঠযোগ্য পাসপোর্ট স্বল্পকারে বাংলাদেশ থেকে প্রদান শুরু হলেও মিশনগুলো থেকে এখনো এর কার্যক্রম শুরু হয়নি বিধায় ৩ বছর এর বেশি মেয়াদী কোনো পাসপোর্ট ইস্যু বা নবায়ন হচ্ছে না।

বি. দ্র. : দূতাবাস সংক্রান্ত যে কোনো ফি নগদ অর্থে সরাসরি গ্রহণ করা হয় না। পোস্টাল অর্ডার (Futsu-Kawase-Sho Sho/Telgaku-kogawase-sho sho/ yubin- kawase-এর মাধ্যমে গ্রহণ করা হয়ে থাকে।

নোটিস

বিষয় : Machine Readable Passport (MRP0 & Machine Readable Visa (MRV)

১. গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ১ এপ্রিল ২০১০ হতে Machine Readable Passport (MRP) এবং Machine Readable Visa (MRV) চালু করতে যাচ্ছে। দেশের ৩৪ (চৌত্রিশ)টি অফিস থেকে MRP প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলেও প্রাথমিক পর্যায়ে দেশের অভ্যন্তরে ১০ (দশ)টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে MRP-এর আবেদন ফরম গ্রহণ করা হচ্ছে ৪৮ (আটচল্লিশ) পৃষ্ঠাবিশিষ্ট এবং ৫ (পাঁচ) বছর মেয়াদী পাসপোর্ট প্রদানের জন্য।

২. সারাদেশে গজচ কার্যক্রম সম্প্রসারণ এবং সকলের নিকট MRP সহজলভ্য করার ক্ষেত্রে জনসাধারণের যাতে কোনোরূপ অসুবিধা সৃষ্টি না হয়, সে লক্ষ্যে প্রচলিত আইন/বিধির আওতায় দেশে বর্তমানে প্রচলিত ৬৭ (সাতষট্টি)টি পাসপোর্ট অফিস এবং বিদেশস্থ বাংলাদেশ মিশন হতে আগামী ৩১ মার্চ ২০১১ পর্যন্ত হাতে লেখা জরুরি (Emergency) পাসপোর্ট ইস্যু করা যাবে। এসব পাসপোর্টের মেয়াদ হবে ইস্যুর তারিখ হতে ৩ (তিন) বছর।

৩. এ ছাড়া বর্তমান প্রচলিত যে সকল পাসপোর্ট মেয়াদ ৩১ মার্চ ২০১০-এর পর ০৫ (পাঁচ) বছর হয়ে যাবে, সে সকল পাসপোর্টের মেয়াদ বর্তমানে প্রচলিত ৬৭(সাতষট্টি)টি পাসপোর্ট অফিস এবং বিদেশস্থ বাংলাদেশ মিশন হতে পরবর্তী ০৩ (তিন) বছরের জন্য নবায়ন করা যাবে।

৪. পাসপোর্ট সংক্রান্ত ফিসমূহ জাপানিজ ইয়েন ও মার্কিন ডলারের বর্তমান বিনিময় হারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে নিম্নরূপে নির্ধারণ করা হলো :

ক্যাটাগরি জরুরি সাধারণ
সাধারণ পাসপোর্ট (MRP) ২২,০০০/- (ইয়েন) ১১,০০০/- (ইয়েন)
জরুরি (Emergency) ৩,৫০০/- (১ বছর মেয়াদী) …
পাসপোর্ট হাতে লেখা) ১০,৫০০/- (৩ বছর মেয়াদী)
পাসপোর্ট (হাতে লেখা) ২,০০০/- (প্রতি বছরের জন্য) ১,০০০/- (ইয়েন)
নবায়ন/এনডোর্সমেন্ট (প্রতি বছরের জন্য)
ট্র্যাভেল ডকুমেন্ট ৩,০০০/- (ইয়েন) ১,৫০০/- (ইয়েন)
(হাতের লেখা)

ছাত্র ভিসা ক্যাটাগরি জরুরি সাধারণ
সাধারণ পাসপোর্ট (MRP) ১২,০০০/- (ইয়েন) ৩,৫০০/- (ইয়েন)
জরুরি (Emergency) ৩,৫০০/- (১ বছর মেয়াদী) ….
পাসপোর্ট (হাতে লেখা) ১০,৫০০/- (৩ বছর মেয়াদী)
পাসপোর্ট (হাতে লেখা) ৫০০/- (প্রতি বছরের জন্য) ৩০০/- নবায়ন/এনডোর্সমেন্ট (প্রতি বছরের জন্য)
rahmanmoni@gamil.com

[ad#co-1]