মুন্সীগঞ্জে ১৯৫ শিক্ষার্থীর মধ্যে বৃত্তি প্রদান

ভাল ফলাফল করার জন্য বড় মানুষদের কাছ থেকে বৃত্তির টাকা নিতে কার না ভাল লাগে। আনন্দে উদ্বেলিত আব্দুলস্নাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী ফাইরম্নজ সাদাব ঐশ্বর্য এই উক্তি করে বলেন, এই দিনটি আমার শিক্ষা জীবনের সেরা দিন হিসাবে চিহ্নিত হয়ে থাকল। জেলা পরিষদের অর্থায়নে প্রথমবারের মতো আনুষ্ঠানিকভাবে টঙ্গীবাড়ি উপজেলার ১শ’৯৫ মেধাবীর মধ্যে এমন হাসি ফুটিয়েছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সংসদের হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলির প্রচেষ্টায় এই বৃত্তির ব্যবস্থা হয়েছে বলে জানান জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোফাজ্জেল হোসেন। উপজেলার অডিটরিয়ামে এই উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণ দেন হুইপ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি। জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোফাজ্জেল হোসেনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুল আলম, আলহাজ লুৎফর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার কাজী ওয়াহিদ, ইউএনও আব্দুল জলিল, জগলুল হালদার ভুতু, ড. হেদায়তুল ইসলাম বাদল, শামসুল ইসলাম খান, আজিজুল ইসলাম, শাহজালাল শিকদার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হুইপ এমিলি বলেন, জেলা পরিষদের অর্থায়নে প্রথমবারের মতো যে বৃত্তির ব্যবস্থা করা হয়েছে। তা এখন থেকে অব্যাহত থাকবে। কারণ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে হলে প্রয়োজন সুশিক্ষা, এই সুশিক্ষাকে নিশ্চিত করতে এমন বৃত্তি থাকা প্রয়োজন।

[ad#co-1]