মুন্সীগঞ্জে হরতালে গোলযোগ নেই

মুন্সীগঞ্জে বিএনপির ডাকা হরতালে কোনো ধরনের গোলযোগের খবর পাওয়া যায়নি। ঢাকা-মুন্সীগঞ্জে রুটে বাস চলাচল বন্ধ থাকলেও জেলা শহরে রিকশাসহ অন্যান্য যানবাহন চলছে। অফিস-আদালতেও কাজ চলতে দেখা যায়। শহরের বাইরে মুক্তারপুর সেতুর কাছে পিকেটিং করছে বিএনপি নেতা-কর্মীরা। এর আগে সকালে শহরে হরতালের সমর্থনে মিছিল হয়। এতে নেতৃত্ব দেন সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাই।

মুক্তারপুর থেকে সকাল ৯টার দিকে মিছিল শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে সুপার মার্কেট চত্বরে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে গিয়ে তা শেষ হয়।

হরতালের মধ্যেও ঢাকা-চট্টগ্রাম এবং ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক বলে জানান মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. সফিকুল ইসলাম।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সব সড়কেই গাড়ি চলাচল করছে। শুধু শহর থেকে ঢাকায় বাস সার্ভিস বন্ধ রয়েছে।”

শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার।

শহরের সুপার মার্কেট এলাকায় বিএনপি কার্যালয়ের নিচে কিছু দোকানপাট বন্ধ থাকলেও অন্যান্য জায়গার দোকানপাট খোলা রয়েছে।

এছাড়া সিরাজদীখান, লৌহজং, টঙ্গীবাড়ি, শ্রীনগর উপজেলার মধ্যে আন্তঃজেলা সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক আছে বলে স্থানীয়রা জানান।

খালেদা জিয়ার পল্টনের জনসভামুখী এক যুবদল নেতা ‘খুনের’ প্রতিবাদে এ হরতাল ডাকে বিএনপি।

মুন্সীগঞ্জের মীর কাদিম পৌর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আকবর হোসেনের লাশ ঢাকার সদরঘাট এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদী থেকে গত বৃহস্পতিবার উদ্ধার করা হয়।

বিএনপির দাবি, বুধবার পল্টন যাওয়ার সময় সরকার সমর্থক শ্রমিক লীগের হামলায় তিনি নদীতে পড়ে মারা যান।