মুন্সীগঞ্জে হরতাল পালিত, গ্রেপ্তার ৪

খালেদা জিয়ার পল্টন সমাবেশমুখী এক যুবদল নেতাকে ‘খুনের’ প্রতিবাদে মুন্সীগঞ্জে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করেছে বিএনপি। হরতাল চলাকালে শহরের মুক্তারপুর এলাকায় পিকেটিং করার সময় দলটির চার কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রতিনিধি জানান, ঢাকা-মুন্সীগঞ্জে রুটে বাস চলাচল বন্ধ থাকলেও জেলা শহরে রিকশাসহ অন্যান্য যানবাহন চলেছে। অফিস-আদালতেও কাজ চলতে দেখা যায়।

শহরের সুপার মার্কেট এলাকায় বিএনপি কার্যালয়ের নিচে কিছু দোকানপাট বন্ধ থাকলেও অন্যান্য জায়গার দোকানপাট খোলা ছিল।

হরতাল কর্মসূচির সমর্থনে বিএনপি নেতাকর্মীরা শহরে মিছিল করে। এতে নেতৃত্ব দেন সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাই।

মুক্তারপুর থেকে সকাল ৯টার দিকে মিছিল শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে সুপার মার্কেট চত্বরে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে গিয়ে তা শেষ হয়।

বিএনপি নেতাকর্মীরা শহরের বাইরে মুক্তারপুর সেতুর কাছে পিকেটিং করে। বিকাল ৪টার দিকে পিকেটাররা বোমা ও ইটপাটকেল ছুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা করে বলে পুলিশ জানায়।

এ সময় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরা হলেন- আসাদ মিয়া (১৮), মো. শরীফ হোসেন (২৮), মো. চান মিয়া (৪৫) ও মামুন মিয়া (২৫)।

সদর থানার কর্তব্যরত উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমেনা বেগম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয়েছে।

হরতালের মধ্যেও ঢাকা-চট্টগ্রাম এবং ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক ছিল বলে জানান মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট মো. সফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, “সব সড়কেই গাড়ি চলাচল করছে। শুধু শহর থেকে ঢাকায় বাস সার্ভিস বন্ধ ছিল।”

শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয় বলেও জানান পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট।

এছাড়া সিরাজদীখান, লৌহজং, টঙ্গীবাড়ি, শ্রীনগর উপজেলার মধ্যে আন্তঃজেলা সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক ছিল বলে স্থানীয়রা জানান।

মুন্সীগঞ্জের মীর কাদিম পৌর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আকবর হোসেনের লাশ ঢাকার সদরঘাট এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদী থেকে গত বৃহস্পতিবার উদ্ধার করা হয়।

বিএনপির দাবি, বুধবার পল্টন যাওয়ার সময় সরকার সমর্থক শ্রমিক লীগের হামলায় তিনি নদীতে পড়ে মারা যান।

বিডি নিউজ 24

————————————————————————————
মুন্সিগঞ্জে পুলিশের ধাওয়ায় বিএনপি কর্মীদের ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও বোমা বিস্ফোরণ, গ্রেফতার ৪

কাজী দীপু, মুন্সীগঞ্জ থেকে : ঢাকার সদরঘাটে যুবদল নেতা হত্যার প্রতিবাদে আজ মুন্সীগঞ্জে বিএনপির ডাকা সকাল-সন্ধা হরতাল আংশিক পালন হয়েছে। হরতালে পিকেটিং কালে পুলিশ ধাওয়া দিলে বিএনপি কর্মীরা পাল্টা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এ সময় মুক্তারপুর এলাকায় বিএনপি কর্মীরা কয়েক দফা বোমা ফাটালে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বোমা ফাটানো ও পিকেটিং কালে ইউনিয়ন যুবদল সভাপতি শওকত হোসেনসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ নিয়ে দুই দিনে ১৫ বিএনপি নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। গতকাল সকাল থেকেই সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাই ও বিএনপি নেতা আব্দুল কুদ্দুস ধীরেনের নেতৃত্বে জেলা শহরে ও গজারিয়া উপজেলায় দফায় দফায় হরতালের পক্ষে মিছিল করেছে। এদিকে হরতাল চলাকালে মুন্সীগঞ্জ শহরের উত্তরাংশে দোকানপাট বন্ধ থাকলেও দক্ষিণাংশে খোলা ছিল। অন্যান্য উপজেলায় পরিস্থিতি ছিল স্বাভাবিক। জেলার আভ্যন্তরীন সড়কগুলোতে স্কুটার, টেম্পু ও রিক্সা চলাচল করেছে। তবে ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ-দিঘিরপাড়-বালিগাওঁ-বেতকা ও লৌহজং সড়কে কোন যাত্রীবাহি বাস চলাচল না করায় ঢাকার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল। অন্যদিকে লৌহজং উপজেলায় হরতালের বিরুদ্ধে আওয়ামীলীগ বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

আমাদের সময়

[ad#co-1]