‘ফখরুদ্দীন-মইনের বিচারে গণতদন্ত কমিশন শিগগিরই’

সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ‘অবৈধ’ কার্যক্রম তদন্তে গণতদন্ত কমিশন শিগগিরই গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন সাবেক আইনমন্ত্রী মওদুদ আহমেদ। তিনি রোববার বলেছেন, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃস্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনা করে কমিশনের কাঠামো ও বিষয়বস্তু (টার্মস অব রেফারেন্স) চূড়ান্ত করা হবে।

“কমিশনের মাধ্যমে সাবেক প্রধান উপদেষ্টা ফখরুদ্দীন আহমেদ, সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল মইন উ আহমেদ, সাবেক স্বরাষ্ট্র উপদেষ্টা এমএ মতিন, সেনা কর্মকর্তা মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, এটিএম আমিন ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফজলুল বারীর প্রকাশ্য বিচারের ব্যবস্থা করা হবে”, বলেন মওদুদ।

গত ৮ মে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদেও সমাবেশে এ কমিশন গঠনের সিদ্ধান্ত হয় বলে তিনি জানান। কোনো রাজনৈতিক দলের ব্যানারে এ কমিশন গঠন হবে না বলেও জানান তিনি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ বলেন, “আওয়ামী লীগ প্রতিশ্র”তি দিয়েছিলো- বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ওপর একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করবে। কিন্তু ক্ষমতায় গিয়ে আজও তারা তা করেনি। কারণ ওই সরকারের সুবিধাভোগী হিসেবেই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় বসেছে। তাই ‘ফখরুদ্দীন-মইন’ এর বিচার তারা করতে চায় না।”

মতিঝিলে নিজের চেম্বারে মওদুদ সাংবাদিকদের আরো বলেন, কমিশন তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলের দুই বছর দেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কী ক্ষতি করেছে-তার তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করবে।

“মানবাধিকার লঙ্ঘন করে ওই সময়ে রাজনীতিবিদসহ মানুষজনকে কীভাবে রিমান্ডে নিয়ে হয়রানি-নির্যাতন করা হয়েছিলো, মানুষকে তার বসত বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করেছে, তারও তথ্য সংগ্রহ করা হবে। ওই ৬ জনের বিচার প্রক্রিয়া কীভাবে হবে- সে বিষয়েও মতামত দেবে এ কমিশন। একই সঙ্গে তাদের সঙ্গে অন্য কেউ ভূমিকা পালন করেছিলো কিনা- তাও চিহ্নিত করবে কমিশন।”

এ বিচার হলে আর কেউ ভবিষ্যতে অধৈভাবে ক্ষমতা দখলের চেষ্টা করবে না, বলেন মওদুদ।