সন্ত্রাসী হামলায় মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে মৃত্যুর প্রহর গুনছে

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার এক বীর মুক্তিযোদ্ধা বিএনপি দলীয় সমর্থক সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হয়ে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে মৃত্যুর প্রহর গুনছে। এদিকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য সন্ত্রাসীদের অব্যহত হুমকির কারণে মুক্তিযোদ্ধার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হলেও পুলিশ এ পর্যন্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি। মুক্তিযোদ্ধার পরিবার অভিযোগ করে বলেন, আসামি গ্রেফতারের ব্যাপারে পুলিশ নানা ধরনের টালবাহানা করছে। এদিকে মুক্তিযোদ্ধা মো: আজিজুল হক মিয়াজীর উপর হামলার প্রতিবাদে এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবিতে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। অপরদিকে আসামীরা জামিন নিয়ে বাদীপক্ষকে প্রকাশ্যে হুমকি ধমকি দিচ্ছে।

ঢাকা পঙ্গুহাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত মুক্তিযোদ্ধা মো: আজিজুল হক মিয়াজী জানান, গত ৫ এপ্রিল স্থানীয় বিএনপি দলীয় ক্যাডার মো: মনির হোসেন, মো: ছানাউল্লাহ, হেদায়েত উল্লাহ, সাইফুল, আব্দুল খালেকসহ ১০/১২ জনের একদল সন্ত্রাসী তার মেয়ের জামাইয়ের জমি থেকে জোর পূর্বক মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছিল। এ খবর পেয়ে তিনি সেখানে গিয়ে বাধা দিলে সন্ত্রাসীরা ক্ষিপ্ত হয়ে একটি গর্তের মধ্যে তাকে ফেলে দিয়ে লোহার রড, কাঠের রুল দিয়ে এলোপাথারি পেটায় এবং রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এতে তার ডান পায়ের হাটুর নিচ থেকে ভেঙ্গে পাচঁটি টুকরো হয়ে গেছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক মিয়াজি জানান, এ ব্যাপারে গজারিয়া থানায় পাচঁজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করা হয়। ঘটনার প্রায় ১৩ দিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ এ পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করেনি। আসামি গ্রেফতারে পুলিশ নানা টালবাহানা করছে বলে তিনি অভিযোগ করেন । উল্টো আসামিরা মামলা তুলে নেয়ার জন্য তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাকে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে। ফলে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে তার পরিবারের সদস্যরা। এ ব্যাপারে মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: শহিদুল ইসলাম শহিদ আসামি গ্রেফতারে পুলিশের টালবাহানার অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, আসামিরা কোর্টে হাজির হয়ে জামিন নিয়েছে।

ukbdnews

[ad#co-1]