অতোটা বোকা কখনো হইনি : বাঁধন

চারদিকে সবুজের হাতছানি, শতজল, ঝর্ণার ধ্বনি, জোনাকির দেহ থেকে ঝরে পড়া আলো ও দিনে মিষ্টি রোদের খানিকটা উষ্ণতা তার সঙ্গে øিগ্ধ দক্ষিণা বাতাস, আহ! মন কেড়ে নেয়। এই আমাদের বসন্ত। বসন্তের দিনগুলো গড়িয়ে প্রায় শেষ প্রান্তে চলে এসেছে সেই সঙ্গে জুড়ে দিয়েছে নতুন একটি ইংরেজি মাস। যার নামের সঙ্গে বোকা শব্দটি ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

হ্যাঁ পাঠক, এপ্রিল ফুলের কথাই বলছি। আপনি হয়তো মনের অজান্তেই বোকা বনে গেছেন কিংবা অন্য কাউকে বোকা বানিয়ে এক গাল হেসে নিয়েছেন। এমন বোকা হওয়ার প্রসঙ্গে লাক্স তারকা বাঁধন বলেন, ‘আসলে খুব সহজে কেউ আমাকে বোকা বানাতে পারে না, তাছাড়া মনে রাখার মতো অতোটা বোকা কখনোই হইনি। বোকা হয়েছেন কি? এমন প্রশ্ন কর্ণপাত করে সত্যিই বোকা হয়েছি।’

‘মুখ তার শ্রাবস্তীর কারুকার্য’ পঙ্ক্তিটি যেন বাঁধনকে ঘিরেই লেখা। শুধু রূপবতীই নন, এই সুহাসিনী মেধা ও মননশীলতারও অসাধারণ স্বাক্ষর রেখেছেন ছোট পর্দায়। সেই সঙ্গে ব্যক্তিগত জীবনে যুক্ত করে নিলেন নতুন একটি বিশেষণ- ‘দাঁতের ডাক্তার’।

সম্প্রতি তিনি এমবিবিএস কোর্সের ইতি টেনেছেন। আবারো ব্যস্ত হয়েছেন ছোট পর্দার। ব্যস্ততা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘শিক্ষা জীবনের দীর্ঘ সাগর পাড়ি দিয়েছি। অনেক ভালো লাগছে। এই সুযোগটা কাজে লাগাতে চাই, টানা দেড় বছর নাটকে কাজ করবো।

তারপর স্কলারশিপ নিয়ে দেশের বাইরে যাবো ডেন্টালের ওপর উচ্চতর ডিগ্রির জন্য। আর দেশে ফিরেই চেম্বারে বসার

চিন্তাভাবনা করছি।’

ছোট পর্দার তারকারা আজকাল বড় পর্দার দিকে ঝুঁকছেন।

রুপালি পর্দাকে আপন করে নিতে গিয়ে অনেকেই হারিয়ে যাচ্ছেন। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আসলে বড় পর্দায় অভিনয় করার আগ্রহ খুব একটা নেই।

তবে অনেক অফার পাচ্ছি, ব্যাটে বলে মিলে গেলে অবশ্যই অভিনয় করবো।

বিয়ে প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বাঁধন বলেন, ‘বিয়ে নিয়ে কোনো চিন্তা করছি না। আপাতত সিদ্ধান্ত হচ্ছে অভিনয়ে ব্যস্ত থাকবো। তারই ধারাবাহিকতায় প্রায় হাফ ডজন নাটকে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। তার মধ্যে চৈতা পাগল, ইয়ার ফোন, চাঁদ ফুল অমাবশ্যা, রয়েছেই। বাকি পথ দেখেশুনেই পার করবেন বাঁধন।

-এম এইচ নির্জন

[ad#co-1]