মুন্সীগঞ্জে বিএনপি-যুবদল

সংঘর্ষে আহত ২৫ গ্রেফতার ২
মুন্সীগঞ্জ শহরে গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশহিসেবে জেলা যুবদলের বিক্ষোভ শেষে বিএনপি ও যুবদলের মধ্যে ধাওয়াধাওয়ি ও সংঘর্ষে কমপক্ষে ২৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। অপরদিকে বিএনপিকর্মী ফরহাদ (৩০) ও মামুনকে (৩৫) পুলিশ গ্রেফতার করেছে। শহরের থানারপুল এলাকায় জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে জেলা যুবদলের দুগ্রুপ ও দক্ষিণ ইসলামপুর এলাকায় বিএনপির দুগ্রুপের মধ্যে ওই সংঘর্ষ হয়। আহতদের মধ্যে বিএনপির সদস্য আবুল হোসেন, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মিয়া, জয়নাল মেম্বার ও মতিনকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত বিএনপিকর্মী আল-আমিন, আমিনুল, মিয়াচান, ফারুক, আনোয়ারসহ বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

সন্ধ্যা ৬টার দিকে থানারপুল এলাকার বিএনপি কার্যালয়ের সামনে জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মো. মজিবুর রহমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মিয়ার গ্রুপের মধ্যে ধাওয়াধাওয়ি হলে যুবদলের অর্ধশতাধিক ক্যাডার সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। দলীয় আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে যুবদলের ওই ২ শীর্ষ নেতার ক্যাডারদের মধ্যে প্রথমে হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। দক্ষিণ ইসলামপুর এলাকায় শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম কমিশনারের ক্যাডার বাহিনী জেলা বিএনপির নেতা আবুল হোসেন আবুর ওপর হামলা চালিয়ে তাকে বেধড়ক মারধর করে। এতে বিএনপি নেতা আবুর হামলার খবর দক্ষিণ ইসলামপুর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে পাল্টা হামলার প্রস্তুতি নেয় আবুর লোকজন। পরে দক্ষিণ ইসলামপুর এলাকার চকে উভয়ের মধ্যে ধাওয়াধাওয়ি ও সংঘর্ষ বাধে। এ রিপোর্ট লেখার সময় রাত পৌনে ৯টায় মুন্সীগঞ্জ সদর থানার সেকেন্ড অফিসার মো. মনির বলেন, বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দলে ওই সংঘর্ষ হয়। শহরে পুলিশ টহলরত আছে। উভয় গ্রুপের মামলার প্রস্তুতি চলছে।

[ad#co-1]