জন্মদিনে ফরিদুর রেজা সাগর

রাত ১২ টা ১ মিনিটে মা কথাসাহিত্যিক রাবেয়া খাতুন প্রথম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান। এরপর থেকেই শুভেচ্ছার স্রোতে ভাসছেন চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, শিশু সাহিত্যিক এবং নাট্যকার ফরিদুর রেজা সাগর। আজ তার ৫৫তম জন্মদিন। কোনো আয়োজন নেই। নেই আনুষ্ঠানিকতাও। তবুও ব্যস্ত প্রতি মিনিট শুভেচ্ছা গ্রহণে। পরিবারের সদস্য, আত্মীয়স্বজন, শুভানুধ্যায়ীর কোনো হিসাব নেই ফরিদুর রেজা সাগরের। অন্যকে শুভেচ্ছা জানাতে যেমন তার কোনো কৃপণতা নেই। তার প্রতি সবার ভালোবাসাও একই। আর তাই গভীর রাত থেকেই শুভেচ্ছায় ভাসছেন তিনি। কেউ কেউ হাজির ফুল নিয়ে তার বাসায়। সকাল ১০টার দিকেই চ্যানেল আই কার্যালয়ে যান তিনি। কিছুক্ষণের মধ্যে তার কক্ষটি ফুলে ফুলে ভরে ওঠে। দেশের রাজনৈতিক, মিডিয়া কর্মী, অভিনেতা-অভিনেত্রী এবং বিভিন্ন অঙ্গনের মানুষ তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

দেশের প্রথম মিডডে ডেইলি দিনের শেষের পক্ষ থেকেও শুভেচ্ছা জানানো হয় তাকে। এরপর জন্মদিন নিয়ে কিছু সময়ের জন্য দিনের শেষে’র মুখোমুখি হন তিনি। বলেন, আমাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছাটা আমার মা-ই প্রথম জানিয়েছেন। এরপর একে একে সবার শুভেচ্ছা পেয়েছি। এবার জন্মদিন উপলক্ষে বাসায় কিংবা অফিসে কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন করিনি। সকাল থেকেই চ্যানেল আই কার্যালয়ে লোকজন আসছেন তাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করছি। বাকি দিনটা হয়তো এভাবেই কাটাবো। জন্মদিনের অনুভূতি নিয়ে প্রশ্নে বললেন, অনুভূতি কি আর! জীবন থেকে আরো একটি বছর কমলো। ফরিদুর রেজা সাগর ১৯৫৫ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি একটি সাংস্কৃতিক পরিবারেই জন্মগ্রহণ করেন। বাবা প্রয়াত ফজলুল হক, বাংলাদেশে প্রথম চলচ্চিত্র বিষয়ক পত্রিকা সিনেমা’র সম্পাদক এবং প্রথম শিশু চলচ্চিত্র প্রেসিডেন্ট’র নির্মাতা। মা প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক রাবেয়া খাতুন। শিশু সাহিত্যিক হিসেবে ফরিদুর রেজা সাগরের খ্যাতি রয়েছে বিগত দু’দশকেরও বেশি সময় ধরে। ছোটবেলা থেকেই কেন্দ্রীয় কচিকাঁচার মেলা এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনের জন্মলগ্ন থেকে তিনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। টিভি অনুষ্ঠান উপস্থাপনার পাশাপাশি তার লেখা বেশ কয়েকটি নাটক প্রচার হয়েছে টেলিভিশনে। শ্রেষ্ঠ অনুষ্ঠান নির্মাণ এবং পরিচালনার জন্য এ পর্যন্ত তিনি অর্জন করেছেন জাতীয় পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার।

দিনের শেষে

[ad#co-1]