মুন্সীগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসা পেল না মারাত্মক আহত শ্রমিক

ষষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতুতে বৃহস্পতিবার বিকেলে একটি মালবোঝাই পিকআপ ভ্যান উল্টে ৩ পরিবহন শ্রমিকের আঘাত মারাত্মক হলেও মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা পেলেন না। মুন্সীগঞ্জ শহরের উপকন্ঠে মুক্তারপুর এলাকার ওই সেতুর উপর নারায়ণগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা পিকআপ ভ্যানটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে ওই সড়ক দুর্ঘটনাটি ঘটে। এতে আহত হন পিকআপ ভ্যানের পরিবহন শ্রমিক কুদ্দুস (৩৫), নিজাম (৩২) ও জহুর আলী (৩০)। তাৎণিক আহতদের আশঙঙ্কা জনক অবস্থায় মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে মুক্তারপুরের এলাকাবাসী।

আহত শ্রমিকদের হাসপাতালের জরম্নরী বিভাগে আনা হলে দীর্ঘ আধা-ঘণ্টা সেখানকার মেঝেতে পড়ে থাকে ওই আহতরা। এরমধ্যে একবারের জন্যও তাদের দিকে তাকিয়ে দেখেনি হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স ও কর্মচারীরা। সে সময় আহতদের শরীর বেয়ে ঝরছিল রক্ত। রক্তে হাসপাতালের মেঝে ভিজে গেলো। কিন্তু মন ভিজেনি হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স কিংবা কর্মচারীদের। কথাগুলো জানালেন ঘটনাস্থল মুক্তারপুরের এলাকাবাসী আবু সালেহ, মোহাম্মদ মিয়া। দীর্ঘ ১ ঘণ্টা ডাক্তার ও কর্মচারীদের সেবায় প্রতিায় থেকে কেউ এগিয়ে না আসায় আহতদের নিয়ে যাওয়া হয়েছে ঢাকাতে। এ সময় মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের জরম্নরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক আঃ মান্নান সাংবাদিকদের বলেন, আমার লোকবলের অভাব। আমি কি করব। ওই আহতদের কি চিকিৎসা দেব আমি। তাই আহতদের ধরিনি আমি।

[ad#co-1]