মুন্সীগঞ্জে আ’লীগ সভাপতির বাসভবনে সাংবাদিককে মারধর

মুন্সীগঞ্জে এক যুবলীগ নেতার বক্তব্য রেকর্ড করার কারণে এক স্খানীয় সংবাদিককে ঘন্টাব্যাপী আটকিয়ে বেদম মারধর করেছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। শহরের কোর্টগাঁও এলাকায় জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো: মহিউদ্দিনের বাসভবনে গতকাল মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটেছে। দৈনিক সকালের খবরের জেলা প্রতিনিধি আরাফাতউজ্জামান বাবু এ আক্রমণের শিকার হন। তিনি মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। এ ব্যাপারে সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

জানা গেছে, সাংবাদিক আরাফাতউজ্জামান বাবু মুন্সীগঞ্জে অনুষ্ঠিতব্য ছাত্রলীগের চারটি সম্মেলন স্খগিত হওয়ার ব্যাপারে সাক্ষাৎকার নিতে সকালে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো: মহিউদ্দিনের বাসভবনে যান। বাসভবনে মহিউদ্দিনের বড় ছেলে ও যুবলীগ নেতা ফয়সাল বিপ্লবকে ঘিরে ছিল ছাত্রলীগ-যুবলীগ-আওয়ামী লীগের স্খানীয় নেতাকর্মীরা। এ সময় সাংবাদিক আরাফাতউজ্জামান বাবু ফয়সাল বিপ্লবসহ অন্যান্যের কথা রেকর্ড করছিলেন। রেকর্ড করার ব্যাপারটি এক ছাত্রলীগ কর্মী জানতে পারে। এ সময় তিনি তার পরিচয় দিলেও রেহাই পাননি। উপস্খিত নেতাকর্মীরা তাকে উপর্যুপরি কিল-ঘুষি-লাথি মারতে থাকে। সাংবাদিককে মারধরের খবর ছড়িয়ে পড়লে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। পরে হাসপাতালে চিকিৎসা নেন তিনি। এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জের সাংবাদিক মহল তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। এ বিষয়টি স্খানীয় সংসদ সদস্য এম ইদ্রিস আলীকে অবগত করা হয়েছে।

[ad#co-1]