মুন্সীগঞ্জে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ বোমাবাজি পুলিশসহ আহত ১৫

তরুণীকে টিপ্পনী দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল মঙ্গলবার রাতে মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়িতে দু’গ্রামের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ ও বোমা বিস্টেম্ফারণে পুলিশসহ কমপক্ষে ১৫ ব্যক্তি আহত হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা ৭টার দিকে জেলার টঙ্গীবাড়ি উপজেলার আলদী বাজারে আলদী গ্রামের ঢালী বাড়ি ও সদর উপজেলার চরাঞ্চলের মাকহাটী-রাজারচরের লোকজনের মধ্যে ওই ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ ও একাধিক বোমা বিস্টেম্ফারণের শব্দে আতঙ্কিত হয়ে বাজারের দোকানিরা ছোটাছুটি শুরু করে। দেড় শতাধিক দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এ সময় বন্ধ হয়ে যায়।

বোমা বিস্টেম্ফারণে গুরুতর আহত পুলিশ কনস্টেবল আব্দুল আলিমকে (২৮) মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকি আহতরা বিভিন্নস্থানে চিকিৎসা নেয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে এক ষোড়শী আলদী বাজারে আসে। সেখানকার মোতালেব ঢালীর মুদি দোকানের সামনে মাকহাটী ও রাজারচরের বখাটে নান্নু, জমির ও জনি তাকে দেখে টিপ্পনি কাটে। এতে দোকান মালিকের ছেলে কামাল প্রতিবাদ করলে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তা সংঘর্ষে গড়ায়। আলদী গ্রামের ঢালীবাড়ির লোকজন ও চরাঞ্চলের রাজারচর-মাকহাটী গ্রামের অর্ধশতাধিক লোক সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ওসি শহীদুল ইসলাম জানান, লাঠিসোটা ও বোমা বিস্টেম্ফারণ ঘটিয়ে দু’গ্রুপে সংঘর্ষ হয়। কমপক্ষে ৪টি বোমার বিস্টেম্ফারণ ঘটে। টঙ্গীবাড়ি উপজেলার আলদী বাজারের পুলিশ ক্যাম্পের কনস্টেবল আবদুল আলিম সংঘর্ষ থামাতে এগিয়ে গেলে বোমায় জখম হন।

[ad#co-1]