‘হুমায়ুন আজাদের ওপর ছুরি চালানোর খবরে মিষ্টি খাই’

‘আমি সে সময় জামায়াতে ইসলামীর একটি মাদ্রাসায় ছিলাম। ওই মাদ্রাসায় আমার শিবিরের সহকর্মী যারা ছিল, ওদের কাছে একজন বলে, ‘হুমায়ুন আজাদ তো মারা যেতে পারে।’ আমি আফসোস করায় একজন বলে, ‘একজন নাস্তিক মারা গেলে তোমার অসুবিধা কী? তুমি এ কথাটা কিভাবে বুঝবে? আগে মিষ্টি খাও।’ সে সময় ওরা আমাকে মিষ্টি খাওয়াল। আমি নিজেই মিষ্টি খেয়েছিলাম হুমায়ুন আজাদকে যেদিন ছুরি চালিয়েছিল।”

সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেছেন হরকাতুল জিহাদের সাবেক কর্মী হাসান রফিক। লেখক ও সাংবাদিক শাহরিয়ার কবিরের আলোচিত প্রামাণ্য চলচ্চিত্র ‘জিহাদের প্রতিকৃতি’তে এ সাক্ষাৎকার রয়েছে। প্রামাণ্যচিত্রের তথ্য থেকে আরো উঠে এসেছে যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও প্রথাবিরোধী লেখক হুমায়ুন আজাদকে হত্যার জন্য জঙ্গিদের প্ররোচিত করেছিলেন জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী। হুমায়ুন আজাদের মৃত্যুর পরও তাঁকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেন তিনি।

২০০৪ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি দেশের খ্যাতিমান লেখক হুমায়ুন আজাদের ওপর নৃশংস হামলা চালায় হরকাতুল জিহাদের জঙ্গিরা। হামলার ছয় মাস পর জার্মানিতে অধ্যাপক হুমায়ুন আজাদ মারা যান। প্রামাণ্যচিত্রে হুমায়ুন আজাদের মৃত্যুর পর এক ওয়াজ মাহফিলে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর দেওয়া বক্তব্য ধারণ করা আছে। সেখানে জামায়াতের নায়েবে আমির সাঈদী বলেন, মুক্ত চিন্তার নামে আল্লাহ ও রাসুল সম্পর্কে আজেবাজে কথা বলতে পারবে না। তাহলে আর ইমানের পঙ্ক্তিতে থাকল না। এ রকম একটা লোক ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ে। আল্লাহ এটাকে বিদায় করে দিয়েছেন। ওটার নাম নিলাম না এই পবিত্র মাহফিলে। দেশে মরলে খুবই অসুবিধা হতো। আল্লাহ শয়তানকে বিদায় করেছেন। ওর কবরে আগুন জ্বলুক কেয়ামত পর্যন্ত।

রাজশাহীর বাগমারায় বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞ চালানো জেএমবির চার শীর্ষ নেতা ছিলেন জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্রশিবিরের সঙ্গে যুক্ত। এ দাবি করে হরকাতুল জিহাদের সাবেক কর্মী হাসান রফিক সাক্ষাৎকারে বলেন, শায়খ আব্দুর রহমান ও তার মেয়ে-জামাই আব্দুল আউয়াল, বাংলা ভাই এবং সানি_ওরা সবাই কিন্তু ছাত্রশিবির করত একসময়। ছাত্রশিবির থেকে শায়খ আব্দুর রহমান বাইরে চলে গিয়েছিল, তাও জামায়াতে ইসলামীর মাধ্যমে মদিনা ইউনিভার্সিতে (সৌদি আরবে) পড়তে। মদিনা ইউনিভার্সিতে পড়তে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কাছ থেকে অনুমতি লাগে, যেটা জামায়াতে ইসলামীর উচ্চপর্যায়ে যাঁরা কাজ করেন তাঁদের।

[ad#co-1]