মুন্সীগঞ্জে এক বছরে খুন অর্ধশত

মহাজোট সরকারের এক বছরে মুন্সীগঞ্জে খুনের সংখ্যা ছুঁয়ে গেছে হাফ সেঞ্চুরিতে।
বছরের শুরুতে জানুয়ারি মাসে ছয়টি খুনের ঘটনা দিয়ে খাতা খোলা হয়। বছরের শেষ অবধি ডিসেম্বরে এসে তিনটি খুনের মধ্য দিয়ে মুন্সীগঞ্জে খুনের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ায় ৫০-এ। জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সরকারিভাবে দেওয়া এক পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে। এর মধ্যে মুন্সীগঞ্জ সদরের চরাঞ্চলের আধারায় বিএনপি সমর্থিত খাঁ গোষ্ঠীর লোকজনের ওপর গুলি ও বোমা হামলা চালিয়ে শ্বশুর আলমাছ বেপারী ও মেয়েজামাই শাহজাহান খাঁ জোড়া খুনের ঘটনাটি ছিল বছরের সবচেয়ে আলোচিত। এছাড়া ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার হাষাড়া এলাকায় ঢাকার ফকিরাপুলের ট্রাভেলস কর্মচারীকে চলন্ত প্রাইভেটের ভেতর ছোরা দিয়ে প্রকাশ্যে হত্যার পর মহাসড়কে ফেলে যায় দুর্বৃত্তরা। জেলার টঙ্গীবাড়িতে মা অঞ্জলী রানীকে দুর্বৃত্তরা কুপ্রস্তাব দিলে অমত দেখালে তার শিশুপুত্র নারায়ণ সাধুকে হত্যার পর লাশ এসিডে ঝলসে দেওয়া হয়। এমনি একের পর এক খুনের বৈতরণী পেরিয়ে ৫০টি খুনের ঘটনার মধ্য দিয়ে ২০০৯ সাল শেষ হয়।

এদিকে গেল এক বছরে মুন্সীগঞ্জে ৫টি ডাকাতি, ১৫টি ছিনতাই ও ৬০টি চুরির ঘটনা ঘটে। এছাড়া নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ৩৯টি, ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৯ জন নারী।

===============================================

মুন্সীগঞ্জে গত বছর রাজনৈতিক হত্যাসহ ৫১ জন খুন

যুগান্তর

মুন্সীগঞ্জে গত বছর রাজনৈতিক হত্যাসহ ৫১ ব্যক্তি খুন হয়েছে। এর মধ্যে চরাঞ্চলের আধারায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সংঘর্ষে জামাই-শ্বশুর ও শহরে রিংকি নামের এক ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে জবাই করে হত্যার ঘটনা ব্যাপক আলোচিত হয়েছিল। উল্লেখযোগ্য হত্যাকাণ্ডের মধ্যে রয়েছে, গত ২৭ জানুয়ারি সদরের গজারিয়াকান্দি গ্রামে আয়শা আক্তার শেফালী নামের দুই সন্তানের জননীকে হত্যা করেছে স্বামী ও দেবর। ৪ ফেব্র“য়ারি সদরের আধারা ইউনিয়নের জাজিরা গ্রামে আওয়ামী লীগ কর্মীদের হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়ে বিএনপি কর্মী আলমাছ বেপারী ও শাহজাহান খান নিহত হয়। নিহত দু’জন সম্পর্কে জামাই ও শ্বশুর। ২০ ফেব্র“য়ারি গজারিয়ার চরবাউশিয়া শান্তিনগর গ্রামে গৃহবধূর হাতে খুন হয়েছেন আলী আকবর নামের এক গৃহকর্তা। ২৪ মার্চ রাতে সিরাজদীখানে ছাত্র-যুব পরিষদের সহ-সভাপতি অরুণ সরকার নামের এক যুবককে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। ১৪ মার্চ গভীর রাতে একই উপজেলার ফেকনাসার এলাকায় সাগর হোসেন নামের এক যুবককে জবাই করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। ২৪ মার্চ মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার রুহিতপুর এলাকায় রিংকি নামের এক ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে জবাই করে হত্যা করেছে এক মাদ্রাসা শিক্ষক। গত ৪ মে শ্রীনগরের কুকুটিয়া ইউনিয়নে পাচলদিয়া গ্রামে স্বামীর নিজ বাড়িতে যৌতুকের জন্য এক গৃহবধূকে হত্যা করে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন। ১১ মে টঙ্গীবাড়ির দিঘিরপাড় এলাকায় বিএনপি ও আওয়ামী লীগের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় যুবদল কর্মী দিদার হোসেন মারা যায়।

[ad#co-1]