ধলেশ্বরীতে ৬ কোটি টাকার বিদেশি পণ্য আটক

মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদীতে গতকাল বুধবার প্রায় ৬ কোটি টাকা মূল্যের বিভিন্ন পণ্যবোঝাই একটি জাহাজ আটক করেছে র‌্যাব। এ ঘটনায় জাহাজের তিন কর্মচারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার কুচিয়ামোড়া এলাকায় ধলেশ্বরী নদীতে পণ্যবোঝাই একটি জাহাজ থেকে ৬ কোটি টাকার ভারতীয় পণ্য আটক করে র‌্যাব-১১। এর মধ্যে শাড়ি, শার্ট, প্যান্ট ও থ্রিপিস রয়েছে। আটক পণ্যের সংখ্যা জানাতে পারেনি র‌্যাব। তবে ২২৫টি গাঁইটের মধ্যে ওই ভারতীয় পণ্যগুলো জাহাজে বোঝাই করা হয়েছিল। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে_ ইউনুছ, মোঃ আলম ও আল-আমিন। তারা এমভি রকি-রাকা নামের জব্ধ করা ওই জাহাজের কর্মচারী বলে দাবি করেছেন। গ্রেফতারকৃতরা জানায় পণ্যবোঝাই করে জাহাজটি মংলা থেকে ছেড়ে আসে। তবে এর গন্তব্য কোথায় ছিল তা তারা জানেন না।

গতকাল দুপুর ২টার দিকে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের সদস্যরা যৌথ অভিযানে ভারতীয় ওই বিপুল পরিমাণ পণ্যসামগ্রী আটক করে। নারায়ণগঞ্জ জেলায় কর্মরত র‌্যাবের এএসপি আবদুল ওহাব জানান, গত দু’দিন থেকে পণ্যবাহী এমভি রকি-রাকা জাহাজটির ওপর নজরদারি করে আসছে র‌্যাব সদস্যরা। তারা গোপন সংবাদের মাধ্যমে জাহাজে বোঝাই করে বিপুল পরিমাণ ভারতীয় পণ্যসামগ্রী আনার কথা জানতে পারেন। ওই পণ্যসামগ্রী কোথায়, কবে ও কীভাবে জাহাজ থেকে খালাস করা হবে তা নিশ্চিত করে জানতেন না। তাই র‌্যাব সদস্যরা নদীপথে নারায়ণগঞ্জের ফতুলল্গায় বুড়িগঙ্গা নদীতে প্রথমে জাল বিস্তার করে। কিন্তু জাহাজটি ফতুলল্গাসহ আরও কয়েকটি পয়েন্টে পণ্য সামগ্রী খালাসের চেষ্টা করলেও পিছ-পা হয়।

র‌্যাব আরও জানায়, নারায়ণগঞ্জের ফতুলল্গা থেকে নজরদারি করতে থাকে এমভি রকি-রাকাকে। এক পর্যায়ে এমভি রকি-রাকা বুড়িগঙ্গা নদী পেরিয়ে ধলেশ্বরী নদীতে প্রবেশ করে সামনের দিকে এগুতে থাকে। লঞ্চটি গতকাল বুধবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার কুচিয়ামোড়া এলাকায় আসে। এখানে জাহাজ থেকে পণ্য খালাসের চেষ্টাকালে র‌্যাব জাহাজটি নোঙরে রেখে তলল্গাশি চালায়। এ সময় র‌্যাব বিপুল পরিমাণ কাপড়ের গাঁইট দেখতে পায় জাহাজের ভেতর।

এক একটি গাঁইটের ভেতর শাড়ি, শার্ট, প্যান্ট ও থ্রি পিস পাওয়া যায়। এ রকম ২২৫টি গাঁইটের মধ্যে ৬ কোটি টাকা মূল্যের ভারতীয় শাড়ি, শার্ট, প্যান্ট ও থ্রি পিস পাওয়া গেছে বলে র‌্যাবের একাধিক সূত্র জানিয়েছে। এ রিপোর্ট লেখার সময় বুধবার রাত পৌনে ৮টার দিকে আটক ভারতীয় পণ্যভর্তি লঞ্চটি মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান থানায় আনার প্রক্রিয়া চলছিল।

[ad#co-1]