খোকা আহ্বায়ক হচ্ছেন !

ঢাকা মহানগর বিএনপি
০ আনোয়ার আলদীন
মির্জা আব্বাসকে স্থায়ী কমিটির সদস্য করার পর এবার ঢাকা মহানগর বিএনপির কমিটি নিয়ে অচলাবস্থার অবসান ঘটতে যাচ্ছে। এখন সাদেক হোসেন খোকাকে ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়কের দায়িত্ব দেয়ার ক্ষেত্রে বিঘœ দূর হয়েছে। কারণ তার বিরোধিরা এখন বড় বড় পদ-পদবী পেয়ে তুষ্ট আছেন। তারা আর মহানগর কমিটি নিয়ে কথা বলছেন না। ফলে চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া সহসাই মহানগর কমিটিতে হাত দিচ্ছেন বলে তার ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছেন।

ইতিমধ্যে জাতীয় স্থায়ী ও আংশিক নির্বাহী কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। নির্বাহী কমিটির বাকি অংশ ঘোষণার পরই ঢাকা মহানগর আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হবে। ৩ দিন আগে বহুবিতর্কিত চট্টগ্রাম কমিটি ঘোষণা করেছেন বেগম খালেদা জিয়া। এই কমিটি নিয়ে অনেক জল ঘোলা হলেও শেষাবধি কমিটি ঘোষণার পর আর টু -শব্দটি হয়নি।

কার্যত: আন্দোলন-সংগ্রামের কেন্দ্রবিন্দু ঢাকা মহানগর গুরুত্বপূর্ণ সাংগঠনিক জেলা হিসাবে পরিচিত, বিশেষ করে বিরোধী দলে থাকা অবস্থায় ঢাকা মহানগরের রাজনীতি সারাদেশে ব্যাপক প্রভাব ফেলে। সরকারবিরোধী আন্দোলন মূলত ঢাকা মহানগর থেকেই সূচিত হয়। খালেদা জিয়া চাচ্ছেন ঢাকা মহানগরীতে অভ্যন্তরীণ কোন্দলবিহীন কমিটি দিতে। কাউন্সিলের আগে আব্বাস ও খোকার মধ্যে কোন্দল নিরসনে খালেদা জিয়া কয়েকজন নেতাকে দায়িত্বও দিয়েছিলেন। কিন্তু তারা ব্যর্থ হওয়ায় চেয়ারপারসন বিশেষ কৌশলের আশ্রয় নেন। এর অংশ হিসেবে মির্জা আব্বাসকে জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য করা হয়েছে। এখন সংস্কারপন্থি হওয়ার পরও খালেদা জিয়া চাচ্ছেন খোকাকে ঢাকা মহানগর বিএনপির দায়িত্বে আনতে। মূলধারার সঙ্গে মেশাতে কারাগার থেকে বের হওয়ার পর থেকেই তিনি খোকাকে বিভিন্ন সময় দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দেন। ঢাকার বাইরেও বেশ কয়েকবার খোকাকে সফরসঙ্গী হিসেবে নিয়ে যান। সর্বশেষ জাতীয় কাউন্সিলে আপ্যায়ন উপকমিটির আহ্বায়ক করা হয় ঢাকার মেয়রকে। এছাড়া ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদসহ আব্বাস বিরোধীরা প্রকাশ্যেই খোকার পক্ষে অবস্থান নেন। ধীরে ধীরে খোকা মূলধারার সঙ্গে মিশে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

মির্জা আব্বাসকেও কাউন্সিলে ব্যবস্থাপনা উপকমিটির মতো গুরুত্বপূূর্ণ দায়িত্ব দেয়া হয়। ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত কাউন্সিল কোনোরকম বিশৃঙ্খলা ছাড়াই শেষ হয়। খালেদা জিয়া থেকে শুরু করে দলীয় নেতাকর্মীরা সবাই এতে খুশি। সূত্র জানায়, মির্জা আব্বাস স্থায়ী কমিটির সদস্য হওয়ার পর ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক হচ্ছেন এটা মোটামুটি নিশ্চিত হলেও বসে নেই খোকা। ওই পদটি নিজের দখলে নিতে তিনি চালিয়ে যাচ্ছেন তদবির-লবিং। আব্বাসের ঘনিষ্ঠজনরা জানান, জাতীয় স্থায়ী কমিটিতে জায়গা পাওয়ায় খোকা ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক হলেও এ নিয়ে কোনো আপত্তি জানাবেন না তিনি। এক্ষেত্রে চেয়ারপারসন যাকে আহ্বায়কের দায়িত্ব দেবেন তাকেই তিনি মেনে নেবেন।

জানা গেছে, ঢাকা মহানগর বিএনপির দায়িত্ব নিয়ে আব্বাস ও খোকা কেউ কাউকেই ছাড় দিতে নারাজ হওয়ায় গত জুনে সারাদেশের ৭২টি সাংগঠনিক জেলায় নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হলেও ঢাকা মহানগরের মতো গুরুত্বপূর্ণ ইউনিটের কমিটি এখনো ঘোষণা করা হয়নি।

[ad#co-1]