মুন্সীগঞ্জের তিনটি উপজেলায় বিবদমান আ’লীগ কর্মীদের সংঘর্ষ

অর্ধশতাধিক আহত, শতাধিক বাড়িঘর ভাঙচুর
কাজী দীপু, মুন্সীগঞ্জ থেকে: ঈদের ছুটিতে মুন্সীগঞ্জের আধারায় এবং গতকাল সোমবার গজারিয়ায় ও টঙ্গীবাড়ীতে আওয়ামী লীগের দুই গ্র“পের দফায় দফায় সংঘর্ষ, গোলাগুলি ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয়পক্ষের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে। সংঘর্ষ চালকালে বোমা বিস্ফোরণ, শতাধিক বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। আহতদের ঢাকা ও স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কোরবানির পশুর চামড়া কেনা-বেচা ও জমি দখল নিয়ে সালিশী বৈঠকে হামলার জের ধরে এসব ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানায়, জমি দখল নিয়ে গতকাল গজারিয়া উপজেলার টান বলাকী গ্রামে আওয়ামী লীগ নেতা গিয়াসউদ্দিন ওরফে ক্লিংকার গিয়াস ও আমিনুল হকের নেতৃত্বাধীন দুই গ্র“পের কর্মীদের মধ্যে প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়। এ সময় শতাধিক ঘরবাড়ি ভাঙচুর করা হয়।

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার দেওয়ানকান্দি গ্রামে ঈদের দিন খালেক মিজি ও জসিম দেওয়ানের নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগের দুই গ্র“পের মধে দু’দফা সংঘর্ষ ও প্রায় ৮ রাউন্ড গোলাগুলি হয়েছে।

এদিকে টঙ্গিবাড়িতে গতকাল আওয়ামী লীগ সমর্থক দুই গ্র“পের মধ্যে হামলা, পাল্টা হামলা ও সংঘর্ষে ২০ আহত হয়। আহতদের মধ্যে ৫ জনকে গুরুতর আহতাবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে টঙ্গিবাড়ি উপজেলা সদরের উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রোববার রাত থেকে উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করছিল বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।

[ad#co-1]