জেটিভি’র আত্মপ্রকাশ

1257403124_japanরাহমান মনি
গত ২১ সেপ্টেম্বর, ’০৯ টোকিওর তাকিনোগাওয়া কাইকান হলে ঈদ আনন্দ অনুষ্ঠানে কানায় কানায় দর্শক-শ্রোতাদের মুহুর্মুহু করতালির মধ্য দিয়ে আত্মপ্রকাশ করে JTV বাংলা (প্রবাসে আমার স্বদেশ) স্লোাগান দিয়ে। এই সময় মঞ্চে টোকিওস্থ বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আশরাফ-উদ-দৌলা সস্ত্রীক, JTV বাংলা পরিচালনা পর্ষদের চার সম্মানিত পরিচালক এবং উপস্থাপক খন্দকার ইসমাইল ছিলেন।

গতানুগতিকভাবে ফিতা কেটে উদ্বোধন না করে আধুনিক ডিজিটাল যুগে বড় পর্দায় ‘শুভ উদ্বোধন JTV বাংলা, প্রবাসে আমার স্বদেশ’ ঘোষণা উদ্যোক্তাদের আধুনিক রুচির পরিচয় বহন করে। উপস্থিত দর্শকরাও উল্লাস প্রকাশ করে এবং সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। পরিচালনা পর্ষদের অন্যতম নিয়াজ আহমেদ জুয়েল মাইক নিয়ে JTV বাংলা প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা থেকে শুরু করে আত্মপ্রকাশ পর্যন্ত সার্বিক সহযোগিতার জন্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, প্রবাসীদের প্রিয়মুখ এমডি এস ইসলাম নানু এবং আহসান হাবীবের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে উভয়কে মঞ্চে আমন্ত্রণ জানান। রাষ্ট্রদূত তার অনুভূতি জানিয়ে উদ্যোক্তাদের সাফল্য কামনা করেন।

জাপান প্রবাসীদের সাফল্য অনেক। এখানে প্রবাসীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় স্থাপিত হয়েছে স্থায়ী শহীদ মিনার, বৈশাখী মেলা, বাংলা মেলা, বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল সকল আয়োজন করে জানান দেয়া হয়েছে বাংলাদেশের সংস্কৃতি কত পুরনো, মজবুত এবং আধুনিক। শিশু-কিশোরদের বাংলা সংস্কৃতির প্রতি আকৃষ্ট এবং উৎসাহিত করার জন্য আয়োজন করা হয় প্রবাস প্রজন্ম। বাংলাদেশ থেকে গুণীজনদের আমন্ত্রণ জানিয়ে সম্মানিত করা হয়। পরবাস এবং দশদিক নিয়মিত বের করে জানান দিচ্ছে মাতৃভাষায় প্রিন্ট মিডিয়ার প্রতি প্রবাসীদের আগ্রহের কথা। সাংবাদিক-লেখক ফোরামের মতো সংগঠন থেকে শুরু করে সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন, ধর্মীয় সংগঠনও রয়েছে প্রবাসী সমাজে। আছে আঞ্চলিক সংগঠনও।

প্রবাসী ব্যবসায়ীগণ স্বীয় প্রচেষ্টায় এখানে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। প্রতিষ্ঠা করেছেন বিজনেস ফোরাম এবং বাংলাদেশ চেম্বার এ্যান্ড কমার্সের মতো শক্তিশালী সংগঠন। তাদের পৃষ্ঠপোষকতায় চলছে বিভিন্ন বিনোদনমূলক বিভিন্ন আয়োজন। ধর্মীয় সংগঠনগুলোর আয়োজনে সব ধর্মের উপস্থিতি জানান দিচ্ছে বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অন্যতম উজ্জ্বল দৃষ্টান্তের এক দেশ। প্রবাসীদের বিভিন্ন আয়োজন এবং বিশ্ব প্রবাসী, প্রয়োজনীয় সব কিছু জানার জন্য আছে বিভিন্ন পোর্টাল। এত কিছুর পরও কিসের যেন একটা অভাব ছিল। ‘সব কিছু থেকেও কি যেন একটা নেই। সেই কি যেন নেই’র অভাবটা পূরণ করল জেটিভি বাংলা, আধুনিক যুগের ইলেকক্ট্রিক মিডিয়া। আশা করি জেটিভি বাংলা প্রবাসীদের দীর্ঘদিনের অভাবটি পূরণ করে প্রবাসীদের মাঝে স্থান করে নিতে সক্ষম হবে। আমরা JTV বাংলার সাফল্য কামনা করি।
rahmanmoni@gmail.com

[ad#co-1]