মুন্সীগঞ্জের সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড বিকাশে নানা উদ্যোগ গ্রহণ

silpakola-150x118। বাছির উদ্দিন জুয়েল, মুন্সীগঞ্জ ।।
ঐতিহ্যবাহী বিক্রমপুর তথা মুন্সীগঞ্জের সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড বিকাশে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে অনেক দির পর নতুন উদ্যোমে সচল হয়েছে। নতুন কমিটি গঠনের মাত্র দুই মাসের মধ্যেই গঠনমূলক পরিবর্তন এসেছে। বিগত সময়ের অনিয়ম নিয়েও নানা ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে শক্ত হাতে। তবে দুর্নীতি থেকে রক্ষা পেতে আবার স্বার্থান্বেষী একটি মহলটি নানা অপতৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে মুন্সীগঞ্জের সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা বাঙালীর সংস্কৃতি বিকাশে সকল অপতৎপরতা রোধ করে এগিয়ে যাওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল শনিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে জিপসি ফুড কর্নারে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ব্যানারে শিল্পকলা একাডেমীর কমিটি পুনর্গঠনের দাবী জানান হয়।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি এমএ আউয়াল বলেন, শিল্পকলার সাবেক সদস্য সচিব আরিফ-উল-ইসলাম সচিব থাকাবস্থায়ই বিধি বহির্ভুতভাবে শিল্পকলা একাডেমীতে হোটেল ব্যবসা শুরু করেন। এ ব্যাপরে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে। জাগরনী থিয়েটারের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন জানান,আরিফ মাত্র এক হাজার টাকা মাসিক ভাড়ায় জিপসি ফুড কর্নার শিল্পকলার বিশাল স্পেস ব্যবহারের পাশাপাশি পানিসহ নানা কিছু ব্যবহার করছে। হাজার হাজার লিটার পানি ব্যবহারের বিল দিতে হচ্ছে শিল্পকলাকে। শিল্পকলার ভেতরে গ্যাস সংযোগ নিয়ে সেখানে বিশাল পাকের ঘর তৈরী করেছে। যা সৌন্দর্য্যমন্ডিত শিল্পকলার স্বাভাবিকতা ব্যাহত ছাড়াও পরিবেশের মরাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। ধোঁয়ার কারণে অনুষ্ঠান চালানোও মাঝে মধ্যে কষ্ট হয়ে পড়ে। তিনি প্রশ্ন করেন, তাহলে কী হোটেল ব্যবসার জন্য শিল্পকলা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে? এছাড়া শিল্পকলা নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ার খবর শুনেই মহলটি শিল্পকলা একাডেমীর কমিটি পুনর্গঠনের নামে নানা আন্দোলনের পাঁয়তারা করছে।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের নেতা নবোদয় সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিষদ মনিরুজ্জামান শরীফ জানান,সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের নামে এসব করা হটকারি সিদ্ধান্ত। তারা দুর্নীতিবাজকে রক্ষার এজেন্ডা নিয়ে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের পরিবেশ বিনষ্ট করার পাঁয়তারা করছে।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা জেলা উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর সভাপতি বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী মতিউল ইসলাম হিরু জানান, শিল্পকলা এখন সবচেয়ে স্বচ্ছ এবং ভাল চলছে। তা সর্বমহলের প্রশংসা কুড়িয়েছে। শিল্প সংস্কৃতির বিকাশে চমৎকার ভূমিকা রাখতে শুরু করেছে জেলা শিল্পকলা একাডেমী। সর্বশেষ নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোটে বিজয়ী নতুন সদস্য সচিব মীর নাসির উদ্দিন উজ্জ্বল নিজের ইমেজের এবং এখানে বেসরকারিভাবে অনুদানের মাধ্যমে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন জেনারেটর স্থাপনসহ সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের সচলায় নানা উদ্যোগ গ্রহন করেছেন। এসব ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. মোশারফ হোসেন জানান,জেলার সাংস্কৃতিক বিকাশে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা শিল্পকলার দীর্ঘদিনের অচলতা নিরসনে নতুন কমিটি করা হয়েছে। গঠনমূলক পরিবর্তনও আসতে শুরু করেছে।