মুন্সীগঞ্জ শহরের কয়েকটি সড়কের সংস্কার কাজ দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ

।। বাছিরউদ্দিন জুয়েল, মুন্সীগঞ্জ ।।
মুন্সীগঞ্জের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কের কাজ কিছুদিন চলার পর হঠাৎ বন্ধ থাকায় মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সংস্কারের জন্য রাস্তা খুঁড়ে হঠাৎ কাজ বন্ধ করে দেয়ায় থানারপুল-মানিকপুর সড়ক, গোয়ালপাড়া-ইদ্রাকপুর সড়ক, মানিকপুর-থানাকাউন্সিল সড়ক ও সুপার মার্কেট থেকে বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত ওয়ানওয়ে সড়কের এক পাশের সড়ক যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এতে আরো খানাখন্দের সৃষ্টি হয়ে মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে। যান চলাচল করতে গিয়ে ছোটকাটো দুর্ঘটনাও ঘটছে। মানুষের হেঁটে চলাচল করতেও সমস্যা হচ্ছে। বৃষ্টি হলে সড়কগুলোতে পানি জমে কর্দমাক্ত হয়ে চলাচলেরও প্রায় অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। কয়েক মাস যাবৎ এসব সড়কের সংস্কার কাজ বন্ধ রয়েছে।

থানারপুল-মানিকপুর সড়ক সংস্কার কাজ বন্ধ থাকায় ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ রুটের যাত্রীবাহী বাসগুলো প্রায় ৪ মাস ধরে শহরের বাসস্ট্যান্ড ও নয়াগাঁও ঘুড়ে ঢাকায় যাচ্ছে। এতে যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। কয়েকদিন ধরে ঝুঁকি নিয়ে মানিকপুর সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল শুরু করেছে। এতে সড়কের আরও ক্ষতি হচ্ছে। এছাড়া গোয়ালপাড়া থেকে ইদ্রাকপুর ও ইদ্রাকপুর থেকে থানা কাউন্সিল সড়ক দুইটি কেটে সড়কের নিচ দিয়ে ড্রেনের পাইপ স্থাপন করার পর প্রায় ৩ মাস অতিবাহিত হলেও সড়কটি নির্মাণ কাজ এখনো শুরু করা হয়নি। এ সড়ক দিয়ে যানবাহন ও মানুষ চলাচলও বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এদিকে সুপারমার্কেট থেকে বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত ওয়ানওয়ে সড়কের এক পাশ প্রায় ৪ মাস যাবৎ বন্ধ রয়েছে। সংস্কারের জন্য সড়কটি খুঁড়ে ধীর গতিতে কাজ কিছুদিন চললেও এখন কাজ সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। শহরবাসী মুন্সীগঞ্জ পৌর কর্তৃপক্ষের কাছে একাধিক বার সড়কগুলোর সংস্কার কাজ শেষ করার জন্য অভিযোগ করেও কোন ফল হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র এডভোকেট মুজিবুর রহমান বলেন, এডিবির (এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংকের) অর্থায়নে এসব সড়কের সংস্কার কাজ চলছে। সংস্কার কাজের গুণগত মান খারাপ হওয়ার আশঙ্কায় বর্ষা ও বৃষ্টির দুইমাস কাজ বন্ধ রাখতে বলেছে এডিবি। দুইমাসের মধ্যে ১ মাস শেষ হয়ে গেছে। বাকী ১ মাস পরেই সড়কের সংস্কার কাজ আবার চালু হবে। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ সড়ক থানারপুল-মানিকপুর সড়কে বর্ষার পানির লেয়ার বৃদ্ধির কারণে রুলার মেশিন চালানো সম্ভব নয়। তাই এ সড়কটির কাজও বন্ধ রাখা হয়েছে। পানি কমলে ১ মাস পরে এ সড়কটির কাজও শুরু করে দ্রুত শেষ করা হবে বলে তিনি জানান।