কেমনে ভুলিব আমি বাঁচি না তারে ছাড়া…

karimহাবিব ওয়াহিদ লন্ডন
কোনো মৃত্যুতে এমন করে আমি স্থির হয়ে যাইনি। বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের সঙ্গে আমার শেষ দেখাটা হলো না। এ কষ্ট সারাজীবন বয়ে বেড়াবো। তার সঙ্গে আমার যে প্রেম তা কোনোদিন ফুরাবে না। মৃত্যুই একমাত্র সত্য। আজ বারবার এমন উপলব্ধিই হচ্ছে। আমি এখন সুদুর লন্ডনে। লন্ডনে বসে আমি বাংলাদেশের বাউল সম্রাটের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। তার মৃত্যু সংবাদ তীরের ফলার মতো আমার বুকে বিঁধে আছে। এ তীর আমি খুলতেই পারছি না। খুলতেও পারবো না। গানের এমন গুণী বাংলার বুকে আর জন্মাবে কি? আমার পরম সৌভাগ্য যে, তার চারটি গান আমি গেয়েছি। আমি যতোদিন বেঁচে থাকবো, ততোদিন গাইতে হবে বন্দে মায়া লাগাইছে। আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম, শিখায়া পিরিতি এবং কেমনো ভুলিবো আমি বাঁচি না তারে ছাড়া গানগুলো। আমার কণ্ঠে এ গানগুলোই শ্রোতারা সবচেয়ে বেশি পছন্দ কশ্রণ। দেশ-বিদেশের স্টেজে বাউল সম্রাটের অনুরাগী-ভক্তরা এ গানগুলো না শুনে আমাকে স্টেজ থেকে নামতেই দেন না। যতোদিন বেঁচে থাকবো এ গানগুলো গাইতেই হবে। যতোবার গাইবো ততোবার বাউল সম্রাটের কথা সুর আমায় আরো উতলা করে তুলবে। তার সঙ্গে আমার এ সুরের প্রেম আমৃত্যু বয়ে বেড়াবো।

আমি যখন বাউল সম্রাটের কথা ও সুরের গান গাই, কম্পোজিশন করি, তখন কোথায় যেন হারিয়ে যাই, নিজেও জানি না। কোনো এক মৌনতার রাজ্যে আমি হারিয়ে যাই। তার মতো এতো বড় সঙ্গীতজ্ঞের কথা-সুরে আমি গাইতে পেরেছি, শ্রোতারা সেই গান পছন্দ করেছেন, তিনবার সিলেটে গিয়ে তার সাক্ষাৎ পেয়েছি। হ্যান্ডিক্যাম ক্যামেরায় তার ভিডিও চিত্র ধারণ করেছি, এ গৌরবময় প্রাপ্তিগুলো আমার সারাজীবনে সবচেয়ে বড় অর্জন। হাওরবেষ্টিত গ্রাম উজানঢলে গিয়ে বাউল সম্রাটকে যেমন দেখেছিলাম, তাতে বারবার মনে হয়েছে এমন জীবন বেছে না নিলে কি গান হয়। গানের জন্যই তো তার জন্ম হয়েছে পৃথিবীতে। আজ তার একটা গানই আনমনে বারবার গেয়ে যাচ্ছি, কেমনে ভুলিবো আমি বাঁচি না তারে ছাড়া…।

[ad#co-1]