মাওয়া ঘাটে টোল আদায় করছে স্থানীয় প্রশাসন কমেছে যাত্রী হয়রানি

স্থানীয় প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে টোল আদায় শুরু হওয়ায় মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ের মাওয়া ঘাট দিয়ে খেয়া ও লঞ্চের যাত্রী হয়রানি কমেছে। ঘাটকে ঘিরে গড়ে ওঠা দীর্ঘদিনের অবৈধ চক্র ভেঙে গেছে। ফলে সরকারের রাজস্ব আয়ও বেড়েছে।

বিভিন্ন সুত্র জানায়, আগে খেয়াঘাটের টোল আদায় করতেন জেলা পরিষদ থেকে ইজারাপ্রাপ্ত ইজারদারেরা। আর লঞ্চঘাটের ক্ষেত্রে তা করতেন বিআইডব্লিউটিএর ইজারদারেরা। ফলে ঘাটকে কেন্দ্র করে একটি সিন্ডিকেট গড়ে ওঠে। তাঁরা টোলের সঙ্গে লঞ্চের ভাড়াও আদায় করে নিতেন। পরে জনপ্রতি হিসাব করে কিছু টাকা লঞ্চ-মালিকদের দিয়ে দিতেন। ১৮ বছর ধরে এ ব্যবস্থা চলে আসছিল। সম্প্রতি বিষয়টি জাতীয় সংসদ ভবনে আলোচনা হলে প্রশাসনের টনক নড়ে। ১ জুলাই থেকে স্থানীয় প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে তিন সদস্যের একটি কমিটি টোল আদায় শুরু করে।

[ad#co-1]