মুন্সীগঞ্জ কোল্ড স্টোরেজে সংরক্ষিত আলুতে পচন অব্যাহত

কাজী দীপু, মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জের কোল্ড স্টোরেজেগুলোতে সংরক্ষিত আলুতে এখন পচন অব্যাহত রয়েছে।
টঙ্গিবাড়ি উপজেলার আলদীবাজারস্থ সিরাজ কোল্ড স্টোরেজের পচে যাওয়া আলু কর্তৃপক্ষ ফেলে দিচ্ছে। এর আগে মুন্সীগঞ্জ শহরের উপকণ্ঠ মুক্তারপুরস্থ বিক্রমপুর মালটিপারপাস কোল্ড স্টোরেজের হাজার বস্তা আলু পচে গেছে। পচে যাওয়া আলু ক্ষতিগ্রত কৃষক ধলেশ্বরীতে নদীতে ফেলে দিচ্ছে। আরো হাজার হাজার বস্তা আলুর পচনের সম্ভাবনা দেখা দেয়ায় কোল্ড স্টোরেজ কর্তৃপক্ষ কৃষকদের খবর দিয়ে তা বের করে নিয়ে গেছে কৃষকরা। বিদ্যুতের অব্যাহত লোডশেডিংয়ের কারনে হিমাগারে রাখা আলুতে পচন দেখা দিয়েছে বলে কৃষকরা জানিয়েছে।

জানা গেছে, বিক্রমপুর মালটিপারপাস কোল্ড স্টোরেজ, দেওয়ান আইস কোল্ড স্টোরেজ ও কদম রসুল কোল্ড স্টোরেজ ও সিরাজ স্টোরেজের মতো মুন্সীগঞ্জের আরো ৬৫টি কোল্ড স্টোরেজেও সংরক্ষন করা আলুতে পচন ধরেছে। এতে আলু চাষী ও ব্যবসায়ীরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। এ বছর মুন্সীগঞ্জের আলু চাষী ও ব্যবসায়ীরা আলূ সংরক্ষন করেছেন সাড়ে ৪ লাখ মেট্রিক টন। এর মধ্যে প্রায় ৩ লাখ মেট্রিক টন আলুতে চাড়া গজিয়েছে এবং পচন ধরার আশংকা করা হচ্ছে ।

হিমাগার মালিকরা জানান, ঘন ঘন বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে হিমাগারগুরো আলু সংরক্ষনের জন্য যে পরিমান ঠাণ্ডা রাখা দরকার, সে পরিমাণ ঠাণ্ডা রাখা যাচ্ছে না। এ অবস্থায় একদিকে আলুতে যেমন চারা গজাচ্ছে অন্যদিকে কিছুটা পচন ধরেছে।