রাব্বি, পশ্চাৎপদ গ্রাম কিংবা তিন মণ মিষ্টির গল্প

Rabbi,Munshiganj,Gpa-5রকিবউদ্দিন রাব্বি তার গ্রামে প্রথম এসএসসি পাসের কৃতিত্ব অর্জন করেছে। সে পেয়েছে জিপিএ-৫। আনন্দে মেতে উঠেছে গ্রামবাসী। রকিবের রেজাল্টের খবর শুনে পুরো গ্রামে শুরু হয় মিষ্টি খাওয়ার ধুম। রাকিবের ভালো রেজাল্টে গ্রামবাসী এরই মধ্যে আড়াই থেকে তিন মণ মিষ্টি বিতরণ করেছে নিজ এলাকা ছাড়াও পার্শ্ববর্তী গ্রামগুলোতে। মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার এ গ্রামের নাম মোল্লারচর।
এখানে বসতি গড়ে ওঠে প্রায় একশ বছর আগে। প্রথম শ্রেণীর পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত এ এলাকা পিছিয়ে আছে শিক্ষা-দীক্ষায়। ধলেশ্বরী ও মেঘনাপরিবেষ্ঠিত মোল্লারচরে একজনও এসএসসি পাস করা মানুষ ছিল না। সেই মোল্লারচরের সন্তান রাকিবউদ্দিন রাব্বি এবার এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে। গ্রামে ৩৪ হাজার মানুষের বসবাস। রাকিবের কৃতিত্ব তাদের মধ্যে এনে দিয়েছে খুশির জোয়ার। রাকিবউদ্দিন রাব্বি (১৫) শহরের উপকণ্ঠে নয়াগাঁও গ্রামের প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়। তার বাবার নাম জসিমউদ্দিন বাচ্চু ও মা মনোয়ারা জসিম। দাদা রিয়াজউদ্দিন নাতির সাফল্যে আনন্দে আত্মহারা। তিনি জানান, সারা গ্রামের মানুষের অহঙ্কারের মাথার মুকুট এখন রাকিব। গ্রামের কাজীউদ্দিন, লাল মিয়া মাতবর, আলমগীর গর্ব করে বলেন, আমাদের কাছে ওর জিপিএ-৫ পাওয়া স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে।
রাকিব মা-বাবার একমাত্র ছেলে। সে বড় হয়ে একজন চার্টার একাউন্ট্যান্ট হতে চায়। গ্রামের চরকিশোরগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তার পড়াশোনার হাতেখড়ি। এ বিদ্যালয়েই পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়েছে সে।