মুন্সীগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ নির্মাণে ভূমি অধিগ্রহণ নিয়ে এলাকাবসীর আপত্তি

মুন্সীগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ নির্মাণের লক্ষ্যে ভূমি অধিগ্রহণের বিরুদ্ধে এলাকাবাসী আপত্তি তুলেছেন। কর্তৃপক্ষের খামখেয়ালীপনার কারণে শহরের উত্তর ইসলামপুরের ধলেশ্বরী নদীবর্তী এলাকার ৪৩টি পরিবার উদ্বাস্তু হয়ে পড়বেন বলে আশং‌কা করছেন স্থানীয়রা।

উল্লেখ্য, এর আগে পানি উন্নয়ন বোর্ড শুকনা মৌসুমে উত্তর ইসলামপুর এলাকার নদীর পাড় ঘেঁষে বাঁধ নির্মাণের সীমানা নির্ধারণ করেছিল। সম্প্রতি পানি উন্নয়ন বোর্ড আগের সিদ্ধান্তু পরিবর্তন করে নতুন করে নদীর পাড় থেকে অনেক ভেতরে বাঁধ নির্মাণের সীমানা নির্ধারণ করে। সে অনুযায়ী জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে ভূমি অধিগ্রহণের জন্য জমির মালিকদের নোটিশ প্রদান করা হয়। এ নোটিশ পেয়ে মঙ্গলবার জমির মালিকরা জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিতভাবে আপত্তি জানান।

উত্তর ইসলামপুরের সালাউদ্দিন পাঠান জানান, আগের সীমানা অনুযায়ী জমি অধিগ্রহণ করলে আমাদের কোন আপত্তি নেই। কিন্তু নতুন করে জেলা প্রশাসন যে সকল জমি অধিগ্রহণের জন্য নোটিশ দিয়েছে তাতে করে ৪৫টি পরিবার ফসলী জমিসহ গৃহহীন হয়ে পড়বে। মানবিক দিক বিবেচনা করে জমি অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া যেন প্রশাসন না করে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী আবদুল মতিন এ প্রসঙ্গে বলেন, বিদেশী কনসালটেন্ট, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব এবং সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের উপস্থিতিতে শহর রক্ষাবাঁধের জন্য উত্তর ইসলামপুর এলাকার জমির সীমানা নির্ধারণ করা হযেছে। জমি অধিগ্রহণের দায়িত্ব সরকারের। জমি অধিগ্রহণ না করে আমরা এই এলাকায় বাঁধ নির্মাণের কোন কাজ করবো না।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, মুন্সীগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধের দৈর্ঘ্য হবে সাড়ে ১৮ কিলোমিটা। বাঁধের চওড়া হবে ১০০-১৫০ ফুট এবং উচ্চতা ১৬ ফুট।