‘তম্ময়’ছেড়ে ভাড়া ফ্ল্যাটে উঠছেন ড. ফখরুদ্দীন

fak govt houseবাড়ি বরাদ্দের সময়সীমার ৮ মাস আগেই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সবচেয়ে ক্ষমতাধর প্রধান উপদেষ্টা ড. ফখরুদ্দীন আহমদ স্বেচ্ছায় সরকারি বাসা ছেড়ে দিচ্ছেন। রোববার মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে লেখা এক পত্রে তিনি বাড়ি ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান। নির্বাচিত সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের চার মাসের মাথায় ফখরুদ্দীন আহমদ এ সিদ্ধান্ত নিলেন।
চিঠিতে সাবেক এ প্রধান উপদেষ্টা জানিয়েছেন, তিনি সরকারি বাড়িতে আর থাকতে ইচ্ছুক নন। ইতিমধ্যে ধানমণ্ডিতে ফ্ল্যাট ভাড়া করেছেন। তাই ২নং হেয়ার রোডের সরকারি বাসা ‘তš§য়-২ ম’ ছেড়ে ৩ জুন ভাড়া করা ফ্ল্যাটে উঠবেন। তিনি থাকবেন ধানমণ্ডির ১৫-এ (নতুন) রোডের ৪৮নং বাড়ির কনকর্ড মেনর ভবনের ফ্ল্যাটে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রধান উপদেষ্টা তার চিঠির কপি মহাহিসাব নিয়ন্ত্রক, স্বরাষ্ট্র সচিব, সংস্থাপন সচিব, ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব, অর্থ সচিব এবং গৃহায়ন ও পূর্ত সচিবকে অবহিত করেছেন।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, নিয়মানুযায়ী তিনি ১ বছর এ বাসায় থাকতে পারতেন। বিশেষ প্রয়োজনে আবেদন করলে সময়সীমা আরও বাড়ানো হয়ে থাকে।
বহুল আলোচিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা ছিলেন ড. ফখরুদ্দীন আহমদ। ২০০৭ সালের জানুয়ারি মাসে জরুরি অবস্থার মধ্যে প্রধান উপদেষ্টার দায়িত্ব নিয়ে ৩ মাসের পরিবর্তে তিনি দু’বছর দায়িত্ব পালন করেন। তার সময়ে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ কয়েক ডজন সাবেক মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী কারাগারে ছিলেন। দুর্নীতি দমনের নামে এসময় দেশের খ্যাতনামা বহু ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষকে নানাভাবে হয়রানি করা হয়।