মুন্সীগঞ্জে পূজা উদযাপন পরিষদের সম্মেলন নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা

মুন্সীগঞ্জ জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে হিন্দু ধর্মাবলম্বী নেতৃবৃন্দ দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। সম্মেলন নিয়ে এখন চরম উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। ফলে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে। শুক্রবার শহরের শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গণে সাংবাদিক সম্মেলনে জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক নির্মলেন্দু দত্তসহ বেশ ক’জন নেতা অভিযোগ করেন, অসৎ উদ্দেশ্যে অগঠনতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় জেলা সম্মেলন করার পাঁয়তারা করছে একটি মহল। আর এতে ধর্মপ্রাণ সাধারণ হিন্দুসমাজ ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। মহলটির বিরুদ্ধে ২শ’ কোটি টাকার দেবোত্তর সম্পত্তি আত্মসাতের লোলুপ দৃষ্টির কথাও উল্লেখ করা হয়। হিন্দু নেতৃবৃন্দ সংগঠনের গঠনতন্ত্র এবং অনিয়মের নানা কাগজপত্র প্রদর্শন করে মহলটির অসৎ উদ্দেশ্য কায়েম করতে না দেয়ার জন্য স্থানীয় এমপি, প্রশাসনসহ সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

কেন্দ্রীয় কমিটির অনুমোদিত কমিটি থেকে প্রতারণা করে বিনয় রায় চৌধুরীর নাম মুছে দুলাল মণ্ডল নামে এক বিএনপির সন্ত্রাসীর নাম সম্পৃক্ত করা হয়। আর এই দুলাল মণ্ডলকে সম্মেলন উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক করে ৬টি উপজেলা ও ২ টি পৌরসভার মধ্যে ৪টি উপজেলা এবং বেশ কিছু ইউনিয়নে সম্মেলন না করেই অবৈধভাবে জেলা কমিটি করার পাঁয়তারা চালানো হচ্ছে বলে সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়।

এই সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত থেকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন জেলা পূজা উদযাপন কমিটির আহবায়ক কমিটির সদস্য ও কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের দফতর সম্পাদক গৌতম ব্যানার্জী, এপেক্স ক্লাবের সাবেক ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট অভিজিৎ দাস ববি, সদর উপজেলা পূজা উদ্যাপন কমিটির সভাপতি চন্ডি দাস মণ্ডল, সমর দত্ত, বিজয় সরকার, বিমল পাল, ননী গোপাল হালদার ছাড়াও কিষণ লাল ঘোষ, রবীন্দ্র নারায়ণ দত্ত, অজিত পাল, সুশান্ত দাস বাচ্চু, কালিপদ সরকার, বিশ্বজিৎ ঘোষ প্রমুখ।

জেলা পূজা উদযাপন আহ্বায়ক অধ্যাপক অনিল কুমার চক্রবর্তীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, জাতীয় ও উপজেলা নির্বাচনসহ নানা কারণে বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনা অনুযায়ী জেলা কমিটি গঠনের নির্ধারিত সময় অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে। অতি সম্প্রতি ৩০ মের মধ্যে জেলা কমিটি গঠনের তাগিদ রয়েছে। তাই উপজেলায় গিয়ে তড়িঘড়ি করে কাউন্সিলর নির্বাচন করতে হয়েছে। এতে গঠনতন্ত্রের নীতিমালা ভঙ্গ হয়নি এবং তিনি তার বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ অস্বীকার করেন।

[ad#co-1]