রাজনীতি থেকে নীরবে সরে যাচ্ছেন বি চৌধুরী-ড. কামাল

রাজনীতি থেকে নিজেদের গুটিয়ে নিচ্ছেন অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরী এবং ড. কামাল হোসেন। প্রবীণ এই দুই রাজনীতিককে আগামীতে আর কখনো নির্বাচনি লড়াইয়ে দেখা যাবে না। রাজনীতিকে গুডবাই জানানোর প্রস্তুতির ক্ষেত্রে কয়েক ধাপ এগিয়ে রয়েছেন ড. কামাল। গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন এরইমধ্যে রাজনীতি ও দলীয় নেতৃত্ব থেকে বিদায় নেয়ার বিষয়ে গণফোরাম নেতা-কর্মীদের সবুজ সংকেত দিয়েছেন। কিছুদিন আগে বিদেশ সফরে যাওয়ার প্রাক্কালে দলীয় নেতাদের ডেকে বলেছেন, দীর্ঘ ১৫ বছর গণফোরামের সভাপতি হিসেবে নেতৃত্ব দিয়েছি। দীর্ঘদিন রাজনীতিও করলাম। আমার মনে হয় এখন বিদায় নেয়ার সময় এসেছে। দলীয় নেতারা অবশ্য তাকে দলের কাউন্সিল পর্যন্ত নেতৃত্ব দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছে। তাদের অনুরোধ মেনে নিয়েই ব্রিটেন ও সুইজারল্যান্ডসহ কয়েকটি দেশ সফরে গেছেন ড. কামাল। আগামী জুনের মাঝামাঝি তার দেশে ফেরার কথা। এ বিষয়ে গণফোরামের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী গতকাল এই প্রতিবেদককে বলেন, আমরাও বিকল্প চিন্তা-ভাবনা করছি। বিষয়টি ইতোমধ্যে দলের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায়ও আলোচনা হয়েছে।

তিনি জানান, নির্বাচন কমিশন সময় বৃদ্ধি না করলে জুলাইয়ের ১৭/১৮ তারিখে অনুষ্ঠেয় দলের কাউন্সিলেই নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত হবে। এদিকে, অধ্যাপক বি. চৌধুরীও নিজ দলের নেতা-কর্মীদের প্রায় একই ইঙ্গিত দিয়েছেন। তবে দলের সাংগঠনিক কাঠামোর ভিত তৈরি হওয়া পর্যন্ত নেতৃত্বে থাকতে বি চৌধুরীকেও অনুরোধ করেছেন নেতা-কর্মীরা। এ ব্যাপারে বিকল্পধারার যুগ্ম-মহাসচিব মাহী বি. চৌধুরী গতকাল এই প্রতিবেদককে বলেন, বিকল্পধারা নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। আগামী ৩ মাস নিজস্ব কার্যক্রম নিয়ে ব্যস্ত থাকবে বিকল্পধারা।