স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিল নিয়ে রিট মামলায় হামিদুল্লাহ খান পক্ষভুক্ত

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিলপত্র নিয়ে দায়ের করা রিট আবেদনে বীর প্রতীক এম হামিদুল্লাহ খানকে পক্ষভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

বুধবার বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক এবং বিচারপতি মো. মমতাজ উদ্দিন আহমেদের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

মুক্তিযুদ্ধের ১১ নং সেক্টরের কমান্ডার বীর প্রতীক এম হামিদুল্লাহ খান রিট আবেদনে পক্ষভুক্ত হওয়ার জন্য আবেদন করেন।

আবেদনে বলা হয়েছে, হামিদুল্লাহ খান একজন সেক্টর কমান্ডার হিসেবে মুক্তিযুদ্ধকালীন সকল ঘটনাপ্রবাহ সম্পর্কে অবগত আছেন। এ বিষয়গুলি সঠিকভাবে তুলে ধরতে ও আদালতকে সহযোগিতা করতে তিনি রিটে পক্ষভুক্ত হতে চান।

আদালত শুনানি গ্রহণ করে হামিদুল্লাহ খানকে পক্ষভুক্ত করে তাকে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেন।

হামিদুল্লাহ খানের পক্ষে আবেদনটি পরিচালনা করেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। তাকে সহযোগিতা করেন অ্যাডভোকেট তৌফিক ইনাম টিপু।

গত ২০ এপ্রিল মুক্তিযোদ্ধা ডা. এমএ সালামের রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০০৪ সালের জুন মাসে প্রকাশিত ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিলপত্র’ কেন বাজেয়াপ্ত করা হবে না এবং ‘ইতিহাস বিকৃতকারীদের’ বিরুদ্ধে কেন আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে না তার কারণ জানতে চেয়ে হাইকোর্ট সরকার ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি রুলনিশি জারি করে।

পাশাপাশি বাংলাদেশ ন্যাশনাল আর্কাইভসে রক্ষিত ১৯৭১ সালের ১ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত প্রকাশিত পত্রিকাগুলো রিটটির চূড়ান্ত শুনানির সময় আদালতে উপস্থাপনের নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্টের এই একই বেঞ্চ।

মন্ত্রীপরিষদ সচিব, রাষ্ট্রপতির সচিব, প্রধানমন্ত্রীর সচিব, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, তথ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, মুক্তিযুদ্ধের দলিল প্রকাশনা প্রকল্পের পরিচালক ও প্রিয়াংকা প্রিন্টিং অ্যান্ড পাবলিকেশনের মালিককে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছিল।

http://www.bdnews24.com/bangla/details.php?id=49656&cid=2