মুন্সীগঞ্জে খানকা শরিফে তরুণের রহস্যজনক মৃত্যু

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বড় রায়পুরা গ্রামে ব্যবসায়ী শাহ শের আলী ফিলিং স্টেশনের মালিক আবদুল মান্নানের বাড়ির শাহ শের আলী পীরের খানকা শরিফের ভেতর এক তরুণের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে পুলিশ ওই খানকা শরিফের ভেতর থেকে ওই তরুণের গলিত নগ্ন লাশ উদ্ধার করে। মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে বুধবার বিকালে ওই তরুণের লাশের ময়নাতদন্ত হয়েছে। মাহফিলের সাতদিন পর খানকা শরিফের ভেতর থেকে এ লাশ উদ্ধারের ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসী জানায়, নিহত ওই তরুণ বড় রায়পুরা গ্রামের আবদুস সোবহানের ছেলে রফিকুল ইসলাম। প্রভাবশালী আবদুল মান্নানের বাড়িতে তরুণের মৃত্যুর ঘটনা রহস্যজনক বলে দাবি করেছে এলাকাবাসী। লাশ উদ্ধারের পর মঙ্গলবার রাতে নিহতের পরিবারের সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমে লাশ দাফনের প্রচেষ্টা চালায় পুলিশ। এ সময় বিভিন্ন পত্রিকার সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গেলে পুলিশ লাশ দাফন করতে ব্যর্থ হয়। পরে রাত ১১টায় মর্গে লাশ পাঠানো হয়।
৩০ এপ্রিল শাহ শের আলী খানকা শরিফে সাপ্তাহিক মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে অনেক লোকের সমাগম ঘটে। রাতভর মাহফিলে জিকির-আজকার, দোয়া-দরুদ চলে। পরদিন শুক্রবার খানকা শরিফের মূল ফটকে তালা লাগিয়ে সবাই চলে যায়। এদিকে তিন-চারদিন ধরে খানকা শরিফের ভেতর থেকে তীব্র দুর্গন্ধ আসতে থাকে। এলাকাবাসী স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বসির উদ্দিনকে এ ঘটনা জানায়। তিনি এ ঘটনা জানান পুলিশকে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তালা ভেঙে রফিকুল ইসলামের গলিত লাশ উদ্ধার করে। গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক নিহত তরুণকে মানসিক ভারসাম্যহীন উল্লেখ করে জানান, খানকা শরিফের ভেতর অজ্ঞাতসারে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ওই তরুণ আত্মহত্যা করেছে। সেখানে ফাঁসের দড়ি পাওয়া গেছে। তবে গলায় ফাঁস লাগিয়ে তরুণের আত্মহত্যার কথা বলা হলেও লাশটি খানকা শরিফের মেঝে থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এতে পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্যে অমিল পাওয়া গেছে। শাহ শের আলী ফিলিং স্টেশনের মালিক আবদুল মান্নান জানান, রফিক নামে তরুণটি আধাপাগল। খানকা শরিফ সবার জন্য উন্মুক্ত। সেখানে ঘুমন্ত অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখান থেকে তার লাশ উদ্ধার করে।