১২ ভিআইপিকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

7453_1তালিকায় রয়েছেন আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, মকবুল হোসেন, হাজী সেলিম, মোঃ মহিউদ্দিন, নাদিম মোস্তফা, আবু হানিফ পাটোয়ারী, বাবুল চৌধুরী, মারিয়া চৌধুরী, মাফরুজা সুলতানা, মাসুদুর রহমান ও সফিউর রহমান বাবু
সাবেক মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ও মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়াসহ দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ জন প্রভাবশালী রাজনীতিবিদকে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে নিু আদালতে আÍসমর্পণ করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের তৃতীয় বেঞ্চে বিচারপতি মোঃ ইমান আলী রোববার এই রায় দেন। শুনানিতে সরকার পক্ষে অতিরিক্ত এটর্নি জেনারেল এম ইনায়েতুর রহীম এবং দণ্ডপ্রাপ্ত ভিআইপিদের পক্ষে ব্যারিস্টার রফিক উল হক ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ অংশ নেন।
রায়ের পর অতিরিক্ত এটর্নি জেনারেল এম ইনায়েতুর রহীম সাংবাদিকদের বলেন, আপিল বিভাগ সাবেক আইন প্রতিমন্ত্রী শাহজাহান ওমরকে একই ধরনের মামলায় দুই সপ্তাহের মধ্যে নিু আদালতে আÍসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছিলেন। হাইকোর্টও একই ধরনের রায় দিয়েছেন।
উল্লেখ্য, এর আগে সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ দুদকের আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমরকে দুই সপ্তাহের মধ্যে নিুআদালতে আÍসমর্পণের ওই নির্দেশ দেন। গতকাল হাইকোর্টের তৃতীয় বেঞ্চের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে কিনাÑ সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, আপিল বিভাগ যেহেতু একই বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন, তাই আপিল করা হবে না। ১২ জন দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামির জামিন ও ১৬টি মামলা বাতিলের আবেদনের ওপর গত ২৩ ফেব্র“য়ারি হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ দ্বিধাবিভক্ত রায় দিয়েছিলেন। ওই বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি সৈয়দ এবি মাহমুদুল হক দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামিদের আবেদন বিবেচনাধীন রেখে তাদের আট সপ্তাহের মধ্যে নিু আদালতে আÍসমর্পণ করার নির্দেশ দেন। রায়ে বলা হয়েছিল, নিু আদালতে দণ্ডপ্রাপ্ত প্রভাবশালীদের হেফাজতে নেবে। তবে এ সময়ের মধ্যে তাদের কারাগারে যেতে হবে না। নিু আদালত থেকে প্রভাবশালীদের ওকালতনামায় স্বাক্ষর আনার পর হাইকোর্টে বিচারাধীন আবেদনের ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। অপর বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী প্রভাবশালীদের আবেদনগুলো নিষ্পত্তি করে দিয়ে অবিলম্বে তাদের নিু আদালতে আÍসমর্পণ করতে বলেছিলেন। এ দ্বিধাবিভক্ত রায়টির বিষয়ে পরবর্তী নির্দেশের জন্য ওই বেঞ্চ নথিগুলো প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠিয়ে দেন। প্রধান বিচারপতি এ বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য বিচারপতি ইমান আলীকে তৃতীয় বেঞ্চের দায়িত্ব প্রদান করেন।
হাইকোর্টের তৃতীয় বেঞ্চে যেসব প্রভাবশালীর জামিন ও মামলা বাতিলের আবেদনের নিষ্পত্তি করা হল, তারা হলেন সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, সাবেক এমপি আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ মকবুল হোসেন, হাজী সেলিম, মোঃ মহিউদ্দিন এবং বিএনপির সাবেক এমপি নাদিম মোস্তফা, আবু হানিফ পাটোয়ারী, মোঃ বাবুল চৌধুরী, মারিয়া চৌধুরী, মাফরুজা সুলতানা, মাসুদুর রহমান ও সফিউর রহমান বাবু।

http://www.jugantor.com/enews/issue/2009/05/04/news0815.php