সত্যিকার অর্থে গণতন্ত্রের জন্য একযোগে কাজ করতে হবে : বদরুদ্দোজা চৌধুরী

পারিবারিক আর পেশাগত ব্যস্ততার মধ্যেই এখন বেশিরভাগ সময় কাটছে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্প ধারার প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর। নির্বাচনে পরাজয়ের ব্যর্থতার দায়ভার কাঁধে নিয়ে বিকল্প ধারার প্রেসিডেন্ট পদ থেকে বিদায় নেয়ার তিন মাসের মাথায় আবার দলের হাল ধরেছেন অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। সদ্য সমাপ্ত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুন্সীগঞ্জ ও ঢাকার দুটি আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশ নিয়ে পরাজিত হন তিনি। ওই নির্বাচনে নিজের এবং দলের ভরাডুবির দায় নিয়ে তিনি বিকল্প ধারার নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। সেই থেকে অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী রাজনীতি থেকে অনেকটাই দূরে। যদিও সম্প্রতি তাকে আবার দলের প্রেসিডেন্ট পদে ফিরিয়ে এনে বিকল্প ধারার কমিটি পুনর্গঠন করা হয়েছে।
জানা গেছে, দেশের সাবেক এই রাষ্ট্রপতির এখন বেশিরভাগ সময় কাটছে পেশাগত ব্যস্ততায়। প্রতি সপ্তাহের দু’দিন শনি ও বুধবার বারিধারার নিজস্ব ক্লিনিক কেসি মেমোরিয়ালে রোগী দেখেন। এর বাইরে সপ্তাহের আরও দু’দিন উত্তরায় নিজের প্রতিষ্ঠিত মহিলা মেডিকেল কলেজে ক্লাস নেন। এর বাইরে নিয়মিত বই পড়া ও লেখালেখি করা ছাড়াও স্ত্রী, ছেলেমেয়ে, নাতি-নাতনিসহ অন্য ঘনিষ্ঠ আÍীয়-স্বজনদের সঙ্গে সময় কাটান।
অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, বর্তমান সরকারের বিগত তিন মাসের কার্যক্রম সম্পর্কে মন্তব্য করার জন্য সময় অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত। তিনি বলেন, সরকারি ও বিরোধী দল একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধার রাজনীতি করবে, সংসদে এবং সংসদের বাইরে তাদের আচরণ জনগণকে হতাশ করবে না, দুর্নীতি ও সন্ত্রাস দূর করতে এবং সত্যিকার অর্থে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য তারা আন্তরিকভাবে কাজ করবে, অতীতমুখিতার চেয়ে বর্তমান ও ভবিষ্যৎ বাংলাদেশকে গুরুত্ব দেবে, বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দার প্রেক্ষাপটে দেশকে রক্ষার গুরুদায়িত্ব নিয়ে সবাই একযোগে কাজ করবেÑ এমনটাই জনগণের প্রত্যাশা।