একজনের মৃত্যুদ- ৩ জনের যাবজ্জীবন মুন্সীগঞ্জে ছাত্র হত্যা

মুন্সীগঞ্জের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র আরিফকে হত্যার অভিযোগে একজনকে মৃত্যুদ- ও তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদ-ের আদেশ দেয়া হয়েছে। গতকাল ঢাকার দ্রুত বিচার-৩ আদালতের বিচারক মো. নুরুল হুদা এ আদেশ দেন।
আদালতের আদেশে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামি হচ্ছে মো. রোকনুজ্জামান। যাবজ্জীবন কারাদ- প্রাপ্তরা হলো রাসেল ফকির, হযরত আলী ও ফালান আলী। রায় ঘোষণার সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিল।
মামলা সূত্রে জানা যায়, আরিফ হাসান মুন্সীগঞ্জের বানারী স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। তার ভাই বিদেশ থেকে একটি দামি মোবাইল পাঠিয়েছিল, যা আরিফ ব্যবহার করতো। আসামিরা আরিফের মোবাইলটি নেয়ার জন্য২০০৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর স্কুলে যাওয়ার পথে তাকে আটক করে। পরে তাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে মোবাইলটি তারা নিয়ে যায়।
এদিকে গোপালগঞ্জে অজ্ঞান পার্টির দুই সদস্যকে আট বছর করে সশ্রম কারাদ- দেয়া হয়েছে। গোপালগঞ্জের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দিলীপ কুমার ভৌমিক গতকাল এ রায় দেন। দ-প্রাপ্তরা হচ্ছে হারুজান বেগম ও সোবাহান শেখ। জানা যায়,২০০৪ সালের ২৮ জুলাই জেলার কাশিয়ানী থানার শাসানীডাঙ্গা গ্রামের হানিফ সিকদারের বাড়িতে আত্মীয়ের পরিচয়ে আসামিদ্বয় বেড়াতে আসে। ওই দিন রাতে কৌশলে আসামিরা ভাতের সঙ্গে নেশা জাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে দেয়, ওই ভাত খেয়ে হানিফ, তার স্ত্রী ও সন্তানেরা অচেতন হয়ে পড়ে। ওই সুযোগে আসামিরা বাসা থেকে নগদ ৩০ হাজার টাকা ও ৬৩ হাজার টাকার মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনার পর পরই পুলিশ টাকা ও মালামালসহ আসামিদের আটক করে। আদালত থেকে জামিন নিয়ে তারা এখন পলাতক রয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এপিপি মো. আবদুল হাই।