লৌহজংয়ের প™§ায় অবাধে জাটকা নিধন : গোপন আড়তে বিকিকিনি

আইন-কানুনের তোয়াক্কা না করে একশ্রেণীর অসাধু জেলে লৌহজংয়ের প™§ায় অবাধে নিধন করছে জাটকা ইলিশ। প্রশাসনিক ঝামেলা এড়াতে মাছ বিত্রিক্রর নিয়মিত আড়তের বাইরে গড়ে তোলা হয়েছে জাটকা বেচাকেনার গোপন আড়ত। পুলিশি ভয়ে স্ট’ানীয় হাট-বাজারের বাইরে গ্রামে গ্রামে ঘুরে এক শ্রেণীর অসাধু জেলে জাটকা বিত্রিক্র করে চলেছে দেদারছে।
১ নভেল্ফ^র থেকে ৩১ মে পর্যšø জাটকা ধরা নিষেধ থাকা সত্ত্বেও লৌহজংয়ের জশলদিয়া থেকে ডহড়ি-গাওদিয়া পর্যšø পদ¥ার বিভিল্পু পয়েন্টে কারেন্ট জাল ফেলে এক শ্রেণীর অসাধু জেলে সরকারি আইনকে বৃ™ব্দাঙ্গুলি দেখিয়ে জাটকা নিধন করছে। এসব অসাধু জেলে পদ¥া নদীর মাওয়া-কাওড়াকান্দি ফেরি রুটের বিভিল্পু পয়েন্টে জেলেদের পেতে রাখা জালে প্রতিদিন কোনো না কোনো ফেরির প্রপেলারে আটকে গিয়ে ফেরির মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে মাওয়া ফেরি সার্ভিস কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে।
লৌহজংয়ের পদ¥া থেকে প্রতিদিন কয়েক শ’ মণ জাটকা নিধন করা হচ্ছে বলে বিভিল্পু সহৃত্র থেকে জানা গেছে। অসাধু এই জেলেরা পদ¥া থেকে জাটকা ধরে তা বিত্রিক্রর জন্য নিয়ে আসছে কয়েকটি গোপন আড়তে। প্রতিদিন ভোর সাড়ে ৪টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যšø উপজেলার ব্রাহ্মণগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় সংল¹ু পদ¥ার পাড়ে জশলদিয়া , মাওয়া ও ডহরির গোপন আড়ত থেকে ওইসব জাটকা বিশেষ কায়দায় অন্যান্য মাছের নিচে বিশেষ কায়দায় রেখে পিকআপে করে নেওয়া হচ্ছে ঢাকায়। আবার স্ট’ানীয় জেলেরা গোপন আড়ত থেকে জাটকা কিনে বাজারে বিত্রিক্র না করে গ্রামে গ্রামে ঘুরে তা বিভিল্পু বাড়িতে বিত্রিক্র করে।